এমবাপেকে ছুঁয়ে পুতিন বিরোধী ‘প্রতিবাদ’ (ভিডিও)

প্রকাশ | ১৬ জুলাই ২০১৮, ০৯:১৭ | আপডেট: ১৬ জুলাই ২০১৮, ১১:২৮

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন

প্রায় দেখা যায় প্রিয় তারকাকে ছুঁয়ে দেখার জন্য মাঠের মাঝখানেই ছুটে চলেছেন ভক্ত। কিন্তু এমন দৃশ্য কখনও বিশ্বকাপের মতো আসরে দেখা যায়নি। মাঠের মধ্যে আকস্মিক ঢুকে পড়েছেন সমর্থক। তাও এক জন নয়, মোট চার জন।

বিশ্বকাপের ৫৮ বছরের ইতিহাসে বিশেষ করে ফাইনালে এই রকম দৃশ্য কেউই আশা করেনি। এমনই এক বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করল রাশিয়া। আর এর নেপথ্যে কারা এটাই এখন প্রশ্ন।

ফ্রান্স বনাম ক্রোয়েশিয়ার মধ্যে গড়িয়ে চলা ফাইনালের সাক্ষী থাকতে লুঝনিকি স্টেডিয়ামে উপস্থিত ছিলেন এই চার জনও। দ্বিতীয়ার্ধের খেলার উত্তেজনা চড়া শুরু করেছে। ঠিক এমন সময় সবাইকে অবাক করে মাঠ ঢুকে দৌড়া দৌড়ি শুরু করে দেন কালো প্যান্ট এবং সাদা শার্ট পরা এই চার জন।
--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন  : লুঝনিকিতে চলছে গোল উৎসব
--------------------------------------------------------

এদের মধ্যে একজন পুরুষ অনুপ্রবেশকারীর উদ্দেশ্য ছিল ক্রোয়েট সেন্টারব্যাক ডিজেন লোভরেনের সঙ্গে হাত মেলানো। এছাড়া অপর নারীকে দেখা যায় মাঠে ঢুকে ফ্রেঞ্চ ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপের কাছে দৌড়ে গিয়ে হাত মেলাচ্ছেন। অন্যদিকে অপর দুই জন কোনো ফুটবলারের সামনে আসার আগেই চার জনকে মাঠ থেকে বেড় করে নিয়ে যান নিরাপত্তারক্ষীরা। 

ততক্ষণে খেলা বন্ধ করে ফেলেন দুই দল। পরে আবার রেফারির নির্দেশে শুরু হয় খেলা। যদিও এর পর আর কোনও সমস্যা হয়নি ম্যাচের মাঝে।

তবে, কী ভাবে নিরাপত্তারক্ষীদের ঘেরাটোপ পেরিয়া দর্শকরা মাঠে ঢুকলেন তা নিয়ে শুরু হয়েছে প্রশ্ন। বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে ফাইনালের মতো ম্যাচে নিরাপত্তার ফাঁক ফোকর নিয়েও। সঙ্গে সঙ্গে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে জল ঘোলা শুরু হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

তবে এ ঘটনার দায় স্বীকার করে নিয়েছে দেশটির রক ব্যান্ড ‘পুসি রায়ট’। এটি সরকার বিরোধী প্রতিবাদ হিসেবেই ব্যান্ডটির টুইটার পেজে উল্লেখ করা হয়েছে। 

সেখানে তুলে ধরা হয়েছে মোট তিনটি দাবি। প্রথমটি হচ্ছে, রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি। দুই, প্রতিবাদ করলেই বেআইনি গ্রেপ্তারের বিরোধিতা। আর তিন নম্বরটি হলো, দেশে রাজনৈতিক প্রতিযোগিতার অনুমতি প্রদান। বলাই বাহুল্য, ভ্লাদিমির পুতিনকে বার্তা দেয়াই ছিল প্রতিবাদীদের লক্ষ্য।

নারীবাদী পাঙ্ক ব্যান্ডটি প্রতিষ্ঠিত হয় ২০১১ সালে। পরের বছর পুতিনের বিপক্ষে দুঃসাহসী আউটডোর পারফরম্যান্স করে এক সময় দুনিয়ার নজর কেড়েছিল পুসি রায়ট। এ বার তারা ছড়িয়ে পড়ল আরও অনেক দূর।

আরও পড়ুন  :  

ওয়াই/এসএস