• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

গ্রিজম্যানের গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে ফ্রান্স

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৫ জুলাই ২০১৮, ২১:৫৪ | আপডেট : ১৬ জুলাই ২০১৮, ০০:০২
চমক দিয়েই শুরু হয়েছিল বিশ্বকাপ। ফাইনালেও সেই চমকই চলছে। ইতোমধ্যে বিরতিতে রয়েছে বিশ্বকাপ ফাইনাল। 

মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে শিরোপার লড়াইয়ে বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায় মাঠে নামে ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়া। 

খেলা শুরুর ১৮তম মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে গ্রিজম্যানকে ফাউল করলে রেফারি ফ্রি কিকের নির্দেশ দেন।  গ্রিজম্যানের ফ্রি-কিক ক্লিয়ার করতে গিয়ে নিজের জালে বল ঢুকিয়ে দেন আগের ম্যাচের নায়ক মারিও মানজুকিচ। আর এর মাধ্যমে বিশ্বকাপের ফাইনালে প্রথম আত্মঘাতী গোলদাতা হিসেবে নাম লেখালেন তিনি।

ঠিক এর দশ মিনিট পর ২৮তম মিনিটে পেরেসিচের গোলে স্বস্তি ফেরে ক্রোয়েট শিবিরে। ডি-বক্সের বাহির থেকে পেরিসিচের শট লরিসকে নড়ার সুযোগ না দিয়ে জালে অবস্থান করে। 

কিন্তু এ গোলের রেশ কাটতে না কাটতেই আবারো এগিয়ে যায় ফ্রান্স। ক্রোয়েশিয়াকে এগিয়ে দেয়া গোলদাতা পেরেসিচ এবার ভিলেনের ভূমিকায়। 

ক্রোয়েশিয়ার বক্সের ভেতর উড়ে আসা ক্রসে ফ্রান্সের মাতুইদি হেড করতে ব্যর্থ হন। বল লাগে তার পেছনেই থাকা পেরিসিচের হাতে। রেফারি যদিও প্রথমে পেনাল্টি দেননি। অনেক সময় নিয়ে ভিডিও রিপ্লে দেখে পেনাল্টির বাঁশি বাজান আর্জেন্টাইন রেফারি। পেনাল্টি থেকে ঠাণ্ডা মাথায় গোল করেন গ্রিজমান।  এটিই বিশ্বকাপের কোনও আসরের ফাইনালে প্রথম পেনাল্টি।

যদিও প্রথমার্ধের বল পজিশনে এগিয়ে ছিল ক্রোয়েশিয়া। ক্রোয়েশিয়া তাদের পায়ে বল রাখে ৬০ শতাংশ। অন্যদিকে ফ্রান্সের পায়ে ছিল ৪০ শতাংশ। ক্রোয়েশিয়ার ৭টি শটের বিপরীতে ফ্রান্স নিতে পেরেছে মাত্র ১টি শট। প্রথমার্ধের ৪৫ মিনিটে ক্রোয়েটরা ২০৭টি পাস কমপ্লিট করেছে। অন্যদিকে ফ্রান্স করেছে মাত্র ৯০টি। 

ফ্রান্স একাদশ
লরিস (গোলরক্ষক), পাভার্ড, ভারানে, উমতিতি, হারমেন্ডেজ, পল পগবা, কান্তে, মাতুইদি, আঁতোয়ান গ্রিজম্যান, কিলিয়ান এমবাপে।

ক্রোয়েশিয়া একাদশ
সুবাসিচ (গোলরক্ষক), ভ্রাসালিকো, স্ট্রিনিস, লভরেন, ভিদা, রাকিতিস, মদ্রিচ, ব্রোজোভিচ, পেরিসিচ, মানজুকিচ, রেবিস।

এএ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়