• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

নেইমারদের ডাগআউট সামলাবেন টুখেল

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ১৫ মে ২০১৮, ১৫:০৪ | আপডেট : ১৫ মে ২০১৮, ১৫:১৪
নেইমারের পিএসজি ছাড়ার গুঞ্জনে অস্থির ফুটবল বিশ্ব। এক মৌসুমও হলো না বার্সা ছেড়ে রেকর্ড দামে পিএসজিতে ভিড়েছেন তিনি। অথচ এখনি দল ছাড়ার গুঞ্জন। তবে নেইমার যাবেন কি যাবেন না তা সময় বলে দিবে। কিন্তু এরই মধ্যে চলে গেলেন পিএসজি কোচ উনাই এমেরি। চলতি মৌসুম শেষে পিএসজি ছাড়ছেন তিনি এটা আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন। 

এবার তার জায়গায় পিএসজি নতুন কোচ নিয়োগ দিয়েছে। নেইমার, কাভানি, ডি মারিয়া ও দানি আলভেজদের কোচ হিসেবে দুই বছরের জন্য পার্ক ডি প্রিন্সেসে উনাই এমেরির পরিবর্তে আগামী মৌসুম থেকে দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন থমাস টুখেল। পিএসজির পক্ষ থেকেই সোমবার এ ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

২০১৭ সালে জার্মান লিগ বুন্দেসলিগার দল বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ছাড়েন টুখেল। এরপর কোথায় কাজ করেননি। ৪৪ বছর বয়সি এ কোচ বরুসিয়ায় দুই বছর ছিলেন। এর আগে ২০১৫ সালে লিভারপুলের দায়িত্বেও ছিলেন টুখেল। পিএসজিতে যোগ দিয়ে টুখেল বলেন,‘আনন্দ ও গর্বের সঙ্গে জানাচ্ছি আমি গ্রেট ফুটবল ক্লাব পিএসজিতে যোগ দিচ্ছি। ভালোমানের খেলোয়াড়দের সঙ্গে কাজ করতে মুখিয়ে আছি। তারা এই মুহূর্তে বিশ্বসেরা। অন্যান্য সহকর্মীদের নিয়ে আমরা তাদেরকে সর্বোচ্চ প্রশিক্ষণ দিয়ে তাদের থেকে সেরা ফল বের করার চেষ্টা করবো। দারুণ একটি চ্যালেঞ্জ আমার জন্য সামনে অপেক্ষা করছে। আমিও পিএসজিকে নতুন করে আবিস্কারের অপেক্ষায় আছি।’

যদিও অভিযোগ ছিল ক্লাবের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিরোধে জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি। যার কারণে তাকে ২০১৭ সালে বরখাস্ত করে। অথচ তার তিনদিন আগেই বরুশিয়াকে উপহার দিয়েছিলেন জার্মান ক্লাব কাপ ডিএফবি পোকালের শিরোপা।

গত এক সপ্তাহ ধরেই পিএসজির সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছিলেন টুখেল। তবে, আলোচনা এক সপ্তাহের হলেও পিএসজি অনেক আগে থেকেই চোখ রেখেছিল টুখেলের ওপর। এর মূল কারণ, পিএসজির মালিক শেখ তামিম বিন হাম্মাদ আল থানিই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন টুখেলকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয়ার। টুখেল অনর্গলভাবে ফ্রেঞ্চ ভাষায় কথা বলতে পারেন। এমনকি তার খেলার স্টাইলটা খুবই আক্রমণাত্মক। এই স্টাইলটা আবার বেশ পছন্দ পিএসজির মালিকপক্ষের।

টুখেলের নিয়োগে পিএসজির প্রেসিডেন্ট নাসের আল খালেফি বলেছেন,‘থমাস বেশ প্রতিদ্বন্দ্বী ইউরোপীয়ান কোচ। সাম্প্রতিক সময়ে তার সাফল্য ঈর্ষণীয়। তার অসাধারণ ব্যক্তিত্ব এবং সামনে এগিয়ে যাওয়ার তাড়ণা পিএজিকে বড় সাফল্য পেতে ভূমিকা রাখবে।’

প্রসঙ্গত, এমেরির অধীনে চলতি মৌসুমে লিগ ওয়ানের শিরোপা জয় করেছে পিএসজি। একই সঙ্গে জিতেছে ফ্রেঞ্চ কাপের শিরোপাও। তবুও এমেরির এই সাফল্য যথেষ্ট নয় পিএসজি কর্মকর্তাদের কাছে। তাদের চাই আরও বেশি, ইউরোপিয়ান পর্যায়ের সাফল্য। কারণ, এমেরির অধীনে টানা দুই চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে বার্সা ও রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হেরে বিদায় নিতে হয়েছিল ফরাসি ক্লাবটিকে। পিএসজি কর্মকর্তারা চায় ইউরোপিয়ান পর্যায়ের চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা। এ কারণেই তারা বিদায় করে দিয়েছে এমেরিকে।

এএ/ওয়াই

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়