• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

বেসিকতাসকে নিয়ে বায়ার্নের ছেলেখেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০:৩৮ | আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০:৫৫
উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে শেষ ষোলোর প্রথম লেগে বেসিকতাসকে নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলা করেছে বায়ার্ন মিউনিখ। নিজেদের মাঠ অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনাতে ৫-০ গোলের জয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে এক পা দিয়েই রাখলো ইয়ুপ হেইঙ্কেসের দল। ‘বাভারিয়ান’দের হয়ে জোড়া গোল করেছেন রবার্ত লেভানডোস্কি ও থমাস মুলার। অন্য গোলটি এসেছে কিংসলে কোমানের পা থেকে।

মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলো পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে বায়ার্নের মাঠ অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় বেসিকতাসকের বিপক্ষে দুর্দান্ত জয় পেয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। 

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: মেসির ব্লু গেরো কাটানো গোলে বার্সার স্বস্তি
--------------------------------------------------------

অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় ম্যাচের ১৬মিনিটে ১০ জনের দলে পরিণত হয়েও ৪২ মিনিট পর্যন্ত বায়ার্নকে আটকে রাখলো তুরস্কের ক্লাব বেসিকতাস, সেটিও কম কি! ম্যাচের শুরুর দিকে দুই দলের সামনে কয়েকবার সুযোগ তৈরি হলেও গোল পোস্টে কেউ বল পাঠাতে পারেননি।

প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে ৪৩তম মিনিটে থমাস মুলারের গোলে প্রথম এগিয়ে যায় বায়ার্ন মিউনিখ। এ সময় বামপ্রান্ত থেকে বল নিয়ে এগিয়ে যান কিংসলে কোমান। ততোক্ষণে ডি বক্সের মধ্যে জটলা পাকিয়ে যায়। জটলার মধ্যে বল বাড়িয়ে দেন কোমান। বল পেয়ে যান ডেভিড আলবা। তিনি কাট করে বল দেন থমাস মুলারকে। মুলার বল পেয়েই ঘুরে শট নেন। বল গোলরক্ষকের দুই পায়ের মাঝখান দিয়ে জালে আশ্রয় নেয়। প্রথমার্ধে এই একটি গোলই হয়।

বিরতির পর ৫২ মিনিটে কিংসলে কোমান গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। এ সময় রবার্ত লেভানডোস্কির বাড়িয়ে দেয়া বল থেকে গোল পান কোমান। শেষ তিন চ্যাম্পিয়নস লিগে এটা ছিলো তার দ্বিতীয় গোল। 

৬৬ মিনিটে মুলার তার জোড়া গোল পূর্ণ করলে বায়ার্ন এগিয়ে যায় ৩-০ ব্যবধানে। এ সময় আরিয়েন রোবেনের কাছ থেকে বল পেয়ে যান জশুয়া কিমিচ। তিনি ডানপ্রান্ত থেকে উঁচু করে বল বাড়িয়ে দেন আগে থেকেই গোলমুখে থাকা মুলারকে। উড়ে আসা বলে পা লাগিয়ে জালে পাঠান আনমার্ক মুলার। 

পরের গল্পটুকু শুধুই পোলিশ তারকা রবার্ত লেভানডোস্কির। শেষের দিকে ৭৯তম মিনিটে চতুর্থ গোলটি করেন পোল্যান্ডের স্ট্রাইকার রবের্ত লেভানদোভস্কি। এ সময় ম্যাট হামলেস ২০ গজ দূর থেকে জোরালো শট নেন। তার শট ফিরিয়ে দেন বেসিকতাসের গোলরক্ষক ফাবরি। বল গোলরক্ষকের একটু সামনে পরে। গোলরক্ষক যতোক্ষণে উঠে দাঁড়ান তার আগেই দৌঁড়ে গিয়ে শট নিয়ে বলকে তার গন্তব্যে পাঠান লেভানডোস্কি (৪-০)।

তার ঠিক ৯ মিনিট পরে আবারও ডি-বক্সে গিয়ে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন এই স্ট্রাইকার। ৮৮ মিনিটে থমাস মুলারের বাড়িয়ে দেয়া বল থেকে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন পোল্যান্ডের এই তারকা। তাতে ৫-০ গোলের বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাভারিয়ানরা।

ফিরতি লেগে বেসিকতাদের মাঠ ভোডাফোন এরিনায় খেলতে যাবে বায়ার্ন। মার্চের ১৪ তারিখে আবার মুখোমুখি হবে দুইদল। সেমিফাইনালে যেতে হলে ফিরতি লেগে ঘরের মাঠে বায়ার্নের বিপক্ষে ৬-০ গোলে জিততে হবে তুরস্কের ক্লাবটিকে।

আরও পড়ুন: 

এএ/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়