• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

ভূতুড়ে ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার জয়

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৭:০৪ | আপডেট : ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২০:৩৮
একদিন আগেই হেসে খেলে বাংলাদেশের ১৯৩ রান টপকে যায় শ্রীলঙ্কা। তখন কথা উঠেছিল বাংলাদেশের বোলারদের বোলিং নিয়ে। প্রশ্ন উঠেছিল আসলে কত রান করলে ম্যাচটি জিততে পারতো বাংলাদেশ। 

একদিন না যেতেই সেই একই কাঠগড়ায় নিউজিল্যান্ড। ২৪৪ রানের টার্গেট টি-টোয়েন্টির জন্য যা বিশ্ব রেকর্ডও বটে। কারণ এর আগে এতো রান চেজ করে কেউই জয়লাভ করেনি। এর আগের রেকর্ডটি ছিল ২৩৬ রান টপকে জয়। যা ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২০১৫ সালের ১১ জানুয়ারি স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে করেছিল।

আগের দিন যদি বাংলাদেশের বোলাররা নিম্নমানের বল করে থাকে তাহলে আজ কিউই বোলারদের কি বলা যায়? 

শুক্রবার অকল্যান্ডের ইডেন পার্কে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে ২৪৩ রান সংগ্রহ করে নিউজিল্যান্ড। কিউই ওপেনার মার্টিন গাপটিল সেঞ্চুরি করেন। ৫৪ বল খেলে ছয়টি চার ও নয়টি ছক্কার সাহায্যে ১০৫ রান করেন তিনি। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে এটি তার দ্বিতীয় সেঞ্চুরি।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: পরিবর্তন ছাড়াই দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টির দল ঘোষণা
--------------------------------------------------------

গাপটিল ছাড়াও এদিন দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন অপর ওপেনার কলিন মুনরো। ৩৩ বল খেলে ছয়টি চার ও ছয়টি ছক্কার সাহায্যে ৭৬ রান করেন তিনি। ওপেনিং জুটিতে ১৩২ রানের পার্টনারশিপ গড়েন মার্টিন গাপটিল ও কলিন মুনরো।

অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে রিচার্ডসন ও টাই ২টি করে এবং স্ট্যান লেক ও অ্যাগার ১টি করে উইকেট লাভ করেন। 

রেকর্ড রান তাড়া করে জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে রীতিমতো অসি ব্যাটসম্যানদের ওপর যেনো ভূতই ভর করেছিল। ১৮.৫ ওভারে পাঁচ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় তারা। 

উদ্বোধনী জুটিতে অধিনায়ক ওয়ার্নার ও শর্ট ১২১ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। ওয়ার্নার ২৪ বলে চারটি চার ও পাঁচটি ছয়ের সাহায্যে ৫৯ রানে থামলেও অন্যপ্রান্তে যথারীতি ঝড় তুলছিলেন শর্ট। শর্ট ৪৪ বলে আটটি চার ও তিনটি ছয়ের সাহায্যে ৭৬ রান করে থামেন। অনবদ্য ইনিংসটির জন্য শর্ট প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পান।

পরে ম্যাক্সওয়েলের ১৪ বলে ৩১ ও অ্যারেন ফিঞ্চের ১৪ বলে ৩৬ রান করলে অস্ট্রেলিয়ার জয়কে আটকাতে পারেনি কিউইরা। 

নিউজিল্যান্ডের পক্ষে বোল্ট, সাউদি, সোধি, গ্র্যান্ডহোম সকলেই ১টি করে উইকেট লাভ করেন। 

আজকের ম্যাচে হারের কারণে ফাইনালে ওঠার জন্য নিউজিল্যান্ডের অপেক্ষা বাড়ল। আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি সিরিজের লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবে নিউজিল্যান্ড। ওই ম্যাচে নিউজিল্যান্ড জিতলেই ফাইনালে উঠে যাবে। 

আর হারলে নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের মধ্যে যারা নেট রান রেটে এগিয়ে থাকবে ফাইনালে তারাই অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি। লিগ পর্বে চারটি ম্যাচ খেলে চারটিতেই জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের ফাইনাল ম্যাচ।

আরও পড়ুন: 

এএ/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়