• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

ট্রায়ালের পরই বরুসিয়ায় বোল্ট!

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ০৮ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:১৭ | আপডেট : ০৮ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:৩৫
ছোটবেলায় ভাইয়ের সঙ্গে গ্রামের রাস্তায় ক্রিকেট ও ফুটবল খেলে সময় কাটতো উসেইন বোল্টের। এই দুটি খেলার প্রতিই বোল্টের ভালো লাগা রয়েছে। যে কোনো খেলার মাধ্যমেই হোক সারাক্ষণ দৌড়ের উপরেই থাকতেন তিনি। স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে স্প্রিন্ট ট্র‌্যাকে প্রথম পা পড়ে বোল্টের এবং শুরুতেই বাজিমাত করেন বোল্ট। ১০০ মিটারে স্কুলের সেরা দৌড়বিদ হন। বোল্টকে দেখে অলিম্পিকের সাবেক এক স্প্রিন্টারও বোল্টকে পরামর্শ দেন অ্যাথলেটিক্সে মনোযোগ দেয়ার জন্য। 

জ্যামাইকার হয়ে ক্যারিবীয় অঞ্চলের ইভেন্টে প্রথম অংশ নেন ২০০১ সালে। প্রথমবার অংশ নিয়েই ২০০ ও ৪০০ মিটারে জিতে নেন রুপা। একই বছর হাঙ্গেরিতে অনুষ্ঠিত বিশ্ব যুব চ্যাম্পিয়নশিপে ২০০ মিটারে অংশ নেন। কিন্তু ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হলেও তখন পর্যন্ত ক্যারিয়ার সেরা টাইমিং (২১ দশমিক ৭৩ সে.) করেন।

এরপর তো সবই ইতিহাস। তিনবার ২০০ মিটার স্প্রিন্ট জয়ী প্রথম অ্যাথলেট বোল্ট। দুইবার করে জিতেছেন যুক্তরাষ্ট্রের মাইকেল জনসন ও ক্যালভিন স্মিথ। দুইবার ১০০ ও ২০০ মিটারের ‘ডাবল’ জয়ের একমাত্র কীর্তি। ৫টি ব্যক্তিগত স্বর্ণ জিতে বোল্ট স্পর্শ করেছেন কার্ল লুইস ও কেনেনিসা বেকেলেকে। মাইকেল জনসন ও সের্গেই বুবকা অবশ্য এগিয়ে। এ দু’জন জিতেছেন ৬টি করে ব্যক্তিগত স্বর্ণপদক।

৮টি স্বর্ণ জয়ের বিরল রেকর্ড। এই রেকর্ডে বোল্টের সঙ্গী কার্ল লুইস ও মাইকেল জনসন। কার্ল লুইস তিনটি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিয়ে জিতেছিলেন ৮টি স্বর্ণ। মাইকেল জনসনকে ৮টি স্বর্ণ জিততে খেলতে হয়েছিল ৫টি আসর। মস্কোতে ৩টি স্বর্ণ জিতে উসেইন বোল্ট স্পর্শ করেছেন এই দুজনকে। মেয়েদের মধ্যে অবশ্য ৮টি স্বর্ণ আছে মার্কিন স্প্রিন্টার অ্যালিসন ফেলিক্সের।

ট্র্যাককে বিদায় জানানোর আগেই পেশাদার ফুটবলে নতুন ক্যারিয়ার শুরুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন জ্যামাইকান গতিদানব। এই স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে আরো একধাপ এগিয়ে গেলেন তিনি। এখন জার্মান জায়ান্ট বরুসিয়া ডর্টমুন্ডে ট্রায়াল দেয়ার অপেক্ষায় আছেন এই কিংবদন্তি গতি তারকা।

অলিম্পিক ও বিশ্ব চ্যাম্পিয়শিপে একাধিক শিরোপা জেতা বোল্টের ইচ্ছা ছিল নিজের প্রিয় দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে খেলার। ৩১ বছর বয়সী বোল্ট সিডনি এক্সপ্রেসকে বলেছেন, 'আগামী মার্চে ডর্টমুন্ডে ট্রায়াল দিতে যাব। সেখানেই নির্ধারিত হবে আমার ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার। যদিও ট্রায়াল দেয়ার আগে কিছুটা নার্ভাস অনুভব করছি। আর যাই হোক, খেলাটা তো ভিন্ন। এখানে মানিয়ে নিতে আমার কিছুটা সময় লাগবে। কয়েকটি ম্যাচ খেলার পরই আর কোনো অসুবিধা হবে না বলেই আমার বিশ্বাস।' 

ডর্টমুন্ডের সাথে পৃষ্ঠপোষক হিসেবে রয়েছে বিশ্বখ্যাত স্পোর্টসওয়্যার প্রতিষ্ঠান পুমা। প্রতিষ্ঠানটি বোল্টের সঙ্গেও কাজ করছে। বুন্দেসলিগা দলটিতে বোল্টের ট্রায়ালের ব্যবস্থা তারাই করে দিয়েছে।

বোল্ট বলেছেন, 'ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে খেলা আমার জীবনের অন্যতম বড় একটি স্বপ্ন। তবে ডর্টমুন্ড যদি আমার খেলা পছন্দ করে তবে কঠোর অনুশীলনের মাধ্যমে আমি নিজেকে গড়ে তুলব। ইতোমধ্যেই আমি ইউনাইটেডের সাবেক ম্যানেজার অ্যালেক্স ফার্গুসনের সাথে এ ব্যপারে আলোচানা করেছি। আমি যদি ফিট ও প্রস্তুত থাকি তবে তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।'

এএ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়