জেদ থেকেই তেতে ওঠা মাশরাফির?

প্রকাশ | ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৯:৫৬ | আপডেট: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭, ১০:৫২

স্পোর্টস ডেস্ক

গেলো এপ্রিলে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাতাসে এখনো ভেসে বেড়ায়, অনিচ্ছা সত্ত্বেও একরকম জোর করেই তাকে অবসর নিতে বাধ্য করেছে বিসিবি! অবশ্য বরাবরই এই বিতর্ক এড়িয়ে চলেন ম্যাশ। এবারো এর ব্যতিক্রম ঘটল না।

এবারের বিপিএলে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন সম্মুখভাগ থেকে। দলের জয়ে ব্যাট-বল হাতেও রেখেছেন সমান ভূমিকা। একভাবে বলাও যায়, একরকম তার গুণেই প্রথমবারের মতো শিরোপা ঘরে তুলেছে রংপুর রাইডার্স। সঙ্গত কারণেই এমন পারফরম্যান্সের রহস্যভেদে উন্মুখ গণমাধ্যমকর্মীরা। সংবাদ সম্মেলনেও এর রহস্য উন্মোচনে লড়াকু, অকুতোভয় সৈনিকের কাছে প্রশ্ন ছুড়ে দেন তারা, তাহলে কী এমন তেতে ওঠা জেদ থেকেই? 

মাশরাফি জানালেন, ‘আমি কখনো অপ্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে মাথা ঘামায় না। অমন ‘আজেবাজে’ জেদ আমার মধ্যে নেই। অতীত নিয়ে পড়ে থাকি না।’

পুরো টুর্নামেন্টে দারুণ বল করেছেন। শিকার করেছেন ১৫ উইকেট। ব্যাট হাতে ম্যাচও জিতিয়েছেন। ফিল্ডিংয়েও ছিলেন ক্ষিপ্র। লুফে নিয়েছেন গোটা কয়েক ক্যাচও। চাইলেই তো টি-টোয়েন্টিতে কামব্যাক করতে পারেন? দেশের হয়ে এই ফরম্যাটে খেলাটা চালিয়ে যেতে পারেন?

তিনি বলেন, ‘কামব্যাকের প্রশ্নই আসে না। আমার আজেবাজে জেদও নেই। আমার খেলা সবাই দেখেন। আমি সবসময় ভালো খেলতে চেষ্টা করি। যখন যে দলের হয়ে খেলি, তাদের শতভাগ দেয়ার চেষ্টা করি। কোনো ত্রুটি রাখি না। কী হবে, কী হলো তা নিয়ে ভাবি না, পরিকল্পনাও করি না। রংপুর চাইছিল, যেন তারা সেমিফাইনাল খেলতে পারে। সেখানে শিরোপা জিতেছি। আমি, আমরা, সবাই খুশি।’

জাতীয় দলে কামব্যাক না করলেও ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিতে খেলা চালিয়ে যাবেন নড়াইল এক্সপ্রেস, ‘টি-টোয়েন্টি খেলব। সততার সঙ্গেই বলছি, এতে খেলে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছি। আমারও পরিবার আছে। বিপিএল খেলার সামর্থ্য আমার আছে। ঢাকা লিগেও খেলব।’

ডিএইচ/এসএস