• ঢাকা শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫

টি-টোয়েন্টি কিং গেইল

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ০৯ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৩:৪২ | আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৩:৫২
পুরো নাম ক্রিস্টোফার হেনরি গেইল। জন্ম ওয়েস্ট ইন্ডিজের জ্যামাইকার কিংস্টন নগরীতে, ১৯৭৯ সালের ২১ সেপ্টেম্বর। অদ্যাবধি ক্রিকেট বিশ্বে সবচেয়ে মারকাটারি ব্যাটসম্যান। ক্রিকেটের তিন সংস্করণেই রেখেছেন প্রতিভার স্বাক্ষর। তবে মূলত তিনি বেশি পরিচিতি পেয়েছেন ‘টি-টোয়েন্টি’ মাত করে।

ক্রিকেটের স্বীকৃত সবচেয়ে সংক্ষিপ্ত সংস্করণটি আবির্ভাবের পর থেকেই নিজেকে অন্যভাবে মেলে ধরেছেন গেইল। তিনি ছাড়া যেন সব টি-টোয়েন্টি লিগই রঙহীন, আকর্ষণহীন। যারপরনায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন বিশ্বের সব ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক ঘরোয়া জনপ্রিয় টি-টোয়েন্টি লিগ। নিজ ঘরের সিপিএল, অস্ট্রেলিয়ার বিগ ব্যাশ, ভারতের আইপিএল, পাকিস্তানের পিএসএল, বাংলাদেশের বিপিএল-সব লিগেই তার সদর্প, স্বতস্ফূর্ত উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়।

এসব লিগে গেইলের পদচারণা মানেই বোলারদের বুক ভয়ে কেঁপে উঠা, মানসিকভাবে ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়া। উঠাটাও স্বাভাবিক, কারণ রীতিমতো রুদ্রমূর্তি ধারণ করে ব্যাটকে তলোয়ার বানিয়ে কচুকাটা করেন তাদের। কেড়ে নেন আরাম-আয়েশ, বিশ্রাম-সুখের ঘুম।

তিনি যে এরই মধ্যে ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক ক্রিকেট জগতে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন, তাকে বন্দনায় এত শব্দ খরচ করাতেই বুঝা যায়। প্রতিপক্ষ বোলারদের ওপর রীতিমতো তাণ্ডব চালিয়ে টর্নেডো ইনিংস খেলে একাধিক মাইলফলকের চূড়ায় নিয়ে গেছেন নিজেকে। এতটাই উচ্চতায় নিয়ে গেছেন যে তার সমান উচ্চতায় আসা তো দূরে থাক, ধারেকাছেও কেউ নেই। বিশ্বব্যাপী ক্রিকেট ফেরি করে বেড়ানো ক্যারিবীয় ব্যাটারের ক্যারিয়ার অসংখ্য রেকর্ডের ভাণ্ডারে সম্বৃদ্ধ।

এবার চলুন, চোখ বুলিয়ে নেয়া যাক গেইলের টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে। এখন পর্যন্ত ৩১৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। ব্যাট করেছেন ৩১২ ইনিংসে। অদ্যাবধি কোনো ব্যাটসম্যানের এই সৌভাগ্য হয়নি। ক্রিকেটের সবচেয়ে ছোট ফরম্যাটে ৪০ দশমিক ৫৪ গড়ে করেছেন ১০ হাজার ৯০৭ রান। ১০ হাজারি ক্লাবে প্রবেশ করা বিশ্বের একমাত্র ক্রিকেটার তিনি। এই অর্জনে তার ধারেকাছে কেউ নেই। এই ফরম্যাটে সর্বাধিক রান সংগ্রাহকের তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকা ব্রেন্ডন ম্যাককালামের সংগ্রহ ৮ হাজার ৩৯৭।

গেইল ১০ হাজারি ক্লাবে নাম লেখানোর পথে হাঁকিয়েছেন ১৯টি সেঞ্চুরি। এই অর্জনে তার ধারেকাছে তো দূরের কথা, অর্ধেকেও কেউ নেই। বিস্ফোরক এই ব্যাটসম্যানের পর টি-টোয়েন্টিতে সমান সাতটি করে সেঞ্চুরি আছে ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, ক্লিঙ্গার ও লুক রাইটের। হাফসেঞ্চুরি রয়েছে ৬৭টি, সর্বোচ্চ রানের ইনিংস ১৭৫। এখানেও এই দৈত্যের নিকটে নেই কেউ।

এবার আসা যাক উল্লিখিত ফরম্যাটে বাউন্ডারি হাঁকানো প্রসঙ্গে। টি-টোয়েন্টিতে এখন পর্যন্ত ৮২৮টি চার মেরেছেন গেইল, বিপরীতে ছক্কা মেরেছেন ৮০১টি। এই কৃতিত্বতেও তিনি অনন্য। তার তীরের কাছেও কেউ নেই।

দ্রুততম সেঞ্চুরি হাঁকানোর রেকর্ডটিও দখলে ৩৮ বছর বয়সী ব্যাটসম্যানের। মাত্র ৩০ বলে সেঞ্চুরি হাঁকানোর কীর্তি আছে একমাত্র তারই।

কমপক্ষে ২৫০ ম্যাচ খেলা এবং ৮ হাজার রান করা ক্রিকেটারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি স্ট্রাইক রেটও গেইলের। তার স্ট্রাইক রেট ১৪৮ দশমিক ৫৯। যার নিকটবর্তী দূরত্বেও নেই কেউ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়েও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে সফল গেইল। নিজ দলের হয়ে এখন পর্যন্ত ৫২টি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন তিনি। ৪৯ ইনিংসে ৩৫ দশমিক ০৪ গড়ে করেছেন ১ হাজার ৫৭৭ রান। সেঞ্চুরি রয়েছে ২টি ও হাফসেঞ্চুরি ১৩টি। সর্বোচ্চ রানের ইনিংস ১১৭।

ডিএইচ/ওয়াই

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়