close
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ | ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

তামিমের ফেরার ম্যাচে কুমিল্লার জয়

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ২১:৩৯ | আপডেট : ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ২১:৫০
শেষ বলে ছক্কা মেরে তামিমের ফেরার ম্যাচে কুমিল্লাকে জয় পাইয়ে দিলেন মারলন স্যামুয়েলস। যদিও কুমিল্লার সামনে কোন প্রতিরোধই তৈরি করতে পারেনি চিটাগাং ভাইকিংস। 

দিনের প্রথম ম্যাচে ব্র্যাথওয়েট-পোলার্ড-জহুরুলের ঝড়ো ব্যাটিং দেখে মুগ্ধ হন ক্রিকেটপ্রেমীরা। দ্বিতীয় ম্যাচেও এমন কিছুই দেখতে চেয়েছিলেন তারা। কিন্তু সেরকম কিছুই হয়নি। কুমিল্লার বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৪০ রানের টার্গেট দেয় চিটাগাং।

মঙ্গলবার বিপিএলে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মিরপুরে মুখোমুখি হয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস ও চিটাগাং ভাইকিংস। টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় কুমিল্লা। ম্যাচে ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফিরেন ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। 

ব্যাটিংয়ে নেমে চিটাগাংয়ের দুই ওপেনার লুক রনকি ও সৌম্য সরকার স্কোরবোর্ডে প্রথম ৫ ওভারেই ৪৬ রান তোলেন। এই জুটিকে আর বড় করতে না দিয়ে ব্রেক থ্রু এনে দেন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। দলীয় ৪৬ রানে রনকিকে (৩১) সরাসরি এলবির ফাঁদে ফেলে প্যাভিলিয়নে পাঠান তিনি। দলীয় ৮৩ রানে নবীর বলে ব্যক্তিগত ৩০ রানে ফেরেন সৌম্য। মুনাবিরা (১৯) ও সিকান্দার রাজা (২০) রান করে পরে রশিদ খান এবং ব্রাভোর শিকারে পরিণত হন। পরে অধিনায়ক মিসবাহ ও ক্রিস জর্ডান দলকে এগিয়ে নেন। শেষ পর্যন্ত মিসবাহ (১৬) ও জর্ডান (১৬) রানে অপরাজিত থাকেন। 

কুমিল্লার পক্ষে নবী, সাইফুদ্দিন, রশিদ খান, ব্রাভো একটি করে উইকেট পান। 

১৪০ রানের লক্ষে খেলতে নেমে ইনজুরি থেকে ফেরা তামিম ইকবাল (৪) দলীয় ৭ রানে মুনাবিরার বলে শুভাশিষের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। লিটন দাস (২১) রানে মুনাবিরার বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে ফিরলে কুমিল্লার তখন ৩৯ রান। এরপর ইমরুল কায়েস ও জস বাটলার ম্যাচের লাগাম ধরেন। দলীয় ১১৩ রানে ইমরুল (৪৫) রান করে সানজামুলের বলে তানভীরের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। এরপরই দলীয় ১৩৪ রানে জস বাটলার (৪৪) রান করে সানজামুলের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরে যান। শেষ দুই ওভারে জয়ের জন্য কুমিল্লার প্রয়োজন পড়ে ৬ রান। স্ট্রাইকিং প্রান্তে ছিলেন স্যামুয়েলস। তানভীর হায়দারের প্রথম বলে ছয় মেরে খেলা শেষ করেন। 

চিটাগাংয়ের পক্ষে সানজামুল ও মুনাবিরা ২টি করে উইকেট লাভ করেন। 

স্কোরকার্ড 

চিটাগাং ভাইকিংস
২০ ওভার ১৩৯/৪ (লুক রনকি ৩১, সৌম্য সরকার ৩০, দিলশান মুনাবিরা ১৯, সিকান্দার রাজা ২০, মিসবাহ উল হক ১৬*, ক্রিস জর্ডান ১৬*; মোহাম্মদ নবি ১/১৯, আল আমিন হোসেন ০/২৩, আরাফাত সানি ০/১৪, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন ১/৩০, রশিদ খান ১/১৭, ডোয়াইন ব্রাভো ১/৩২)

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস
১৮.১ ওভার ১৪০/৪ (তামিম ইকবাল ৪, লিটন দাস ২১, ইমরুল কায়েস ৪৫, জস বাটলার ৪৪, মারলান স্যামুয়েলস ১৭*, মোহাম্মদ নবি ০*; দিলশান মুনাবিরা ২/১৭, সিকান্দার রাজা ০/৩০, ক্রিস জর্ডান ০/৩০, শুভাশিষ রায় ০/১৪, সানজামুল ইসলাম ২/১৪, তাসকিন আহমেদ ০/১৮, তানভীর হায়দার ০/২৫)

ফলাফল: কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস ৬ উইকেটে জয়ী
প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ: ইমরুল কায়েস (কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস)

এএ/ওয়াই

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়