close
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ | ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি আয়রনম্যান আরাফাত

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ১২ নভেম্বর ২০১৭, ১৭:২২
মালয়েশিয়ার লংকাওয়েতে শনিবার অনুষ্ঠিত আয়রনম্যান মালয়েশিয়া ইভেন্টে পুরো চ্যালেঞ্জটি শেষ করেছেন বাংলাদেশের মুহাম্মদ সামসুজ্জামান আরাফাত। এই ইভেন্টে এবারের আসরে আয়রনম্যান খ্যাত আরাফাত বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন। প্রথমবারের মতো  এই  ইভেন্টে যোগ দিয়ে পুরো চ্যালেঞ্জ শেষ করতে আরাফাত সময় নেন ১২ ঘণ্টা ৪৩ মিনিট ২৮ সেকেন্ড।

বিশ্বের অন্যতম চ্যালেঞ্জিং এই ইভেন্টে বিভিন্ন দেশের মোট এক হাজার আট জন অংশ নেন। যেখানে ইভেন্টটি শেষ করতে সময় বেঁধে দেয়া হয়েছিলো ১৭ ঘণ্টা। ইভেন্টের শুরুতে প্রথমে ৩.৮ কিলোমিটার পথ সাঁতরে পাড়ি দিতে হয়। এরপর প্রত্যেক প্রতিযোগীকে সাইকেল চালাতে হয় ১৮০ কিলোমিটার।আর শেষটা করতে হয় একটি ফুল ম্যারাথন (৪২.২ কিলোমিটার) দিয়ে।

মালয়েশিয়ার আবহাওয়ায় নিজেকে প্রস্তুত করতে ও সাইকেল চালানোর জড়তা কাটাতে দিন-রাত অনুশীলন করেছেন আরাফাত। গুরুতর ইনজুরি না থাকলেও ডান কাঁধে কিছুটা ব্যথা নিয়েই ইভেন্ট শুরু করে সফলতার সাথে শেষ করেন তিনি।

ইতোপূর্বে চার জন প্রবাসী বাংলাদেশী আয়রনম্যানের এ ইভেন্টটি শেষ করলেও ততটা সাড়া ফেলতে পারেননি। তবে আরাফাতের এই ফু্ল আয়রনম্যান ইভেন্টটি তার ভক্ত ও দেশের যুব সমাজেকে উদ্বুদ্ধ করতে সাহায্য করবে বলে মনে করা হচ্ছে। আর দেশের যুব সমাজকে এমন আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় নিয়মিত অংশগ্রহণে আগ্রহী করে গড়ে তোলাই হচ্ছে আরাফাতের লক্ষ্য। 

একজন সফল আয়রনম্যান হবার জন্য বেশ কয়েক বছর ধরে নিজেকে শারীরিক ও মানসিকভাবে প্রস্তুত করেছেন আরাফাত।  এজন্য দেশ-বিদেশের বিভিন্ন ম্যারাথন প্রতিযোগিতায় অংশ নেন তিনি। আরাফাত সাঁতার কেটে বাংলা চ্যানেল (টেকনাফ থেকে সেন্ট মার্টিন) পাড়ি দিয়েছেন তিন বার। গেলো মাসে দেশে অনুষ্ঠিত মিনি ট্রাথলনে সে বাংলাদেশীদের মধ্যে হয়েছিলেন প্রথম।

এর আগে বাংলাদেশে ‘দ্য গ্রেট বাংলাদেশ রান’ এর ব্যানারে এক দৌড় প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। যেটি ছিলো টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া পর্যন্ত মোট এক হাজার চার কিলোমিটার। বাংলাদেশে এতো লম্বা দৌড় প্রতিযোগিতা এটাই প্রথম।  

আরাফাত বলেন, বিশ্ব ময়দানে বাংলাদেশের পতাকা তুলে ধরতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করছি।

এই ইভেন্টে অংশ নিতে ৪ নভেম্বর আরাফাত মালয়েশিয়ার উদ্দেশে বাংলাদেশ ত্যাগ করেন।

গেলো ২ নভেম্বর আরাফাতের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে তার হাতে বাংলাদেশের পতাকা তুলে দেন পিকেএসএফ'র চেয়ারম্যান ড. কাজী খলিকুজ্জমান আহমদ।

এ/এএ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়