close
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৭ | ০৪ কার্তিক ১৪২৪

‘ফুটবলের কাছেই বিশ্বকাপ পাওনা মেসির’

স্পোর্টস ডেস্ক
|  ১১ অক্টোবর ২০১৭, ১৫:৫৯ | আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০১৭, ১৬:০৯
উদ্বেগ, উৎকণ্ঠার সঙ্গে প্রত্যাশার চাপ। বোঝার ওপর আবার শাকের আঁটি হয়ে ছিল কুইটোর উচ্চতা। সব মিলিয়ে কোণঠাসা অবস্থায় দাঁড়িয়ে ছিল আর্জেন্টিনা। একটি হারই তাদের প্রায় পাঁচ দশক পর ছিটকে দিত ফুটবলের বিশ্ব মঞ্চ থেকে। তবে শেষ পর্যন্ত তা হয়ে উঠেনি। পাহাড় সমান বোঝা একাই কাঁধে বয়ে সরাসরি রাশিয়া বিশ্বকাপে দলকে নিয়ে গেলেন লিওনেল মেসি। তার দুর্দান্ত হ্যাটট্রিকে ইকুয়েডরকে ৩-১ গোলে হারিয়ে তৃতীয় হয়েই বিশ্বকাপে উঠেছে আলবিসেলেস্তেরা।

সঙ্গত কারণেই মেসির প্রতি চাওয়া-পাওয়া বেড়েছে সবার। আর্জেন্টাইনরা চাইতেই পারেন, এবার দেশকে একটি বিশ্বকাপ এনে দিক খুদে জাদুকর। পাশে বসুক ম্যারাডোনার। স্বীকৃতি পাক সর্বকালের সেরার। তবে বিষয়টি ঠিক এভাবে দেখছেন না আর্জেন্টিনা কোচ হোর্হে সাম্পাওলি। তার মতে, ফুটবলের কাছে ঋণী নন মেসি। বরং তার কাছেই ঋণী ফুটবল। এজন্যই ফুটবলের বরপুত্রের বিশ্বকাপ জেতা উচিত।

বাঁচামরার ম্যাচ, অথচ শুরুতেই ঝাটকা খায় আর্জেন্টিনা। মাত্র ৪০ সেকেন্ডের মধ্যেই গোল খেয়ে বসে তারা। এতে শঙ্কার কালো মেঘ আরো জমাট বাঁধে। তবে সব শঙ্কা তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেন মেসি। পিছিয়ে পড়া দলকে একাই কাঁধে বয়ে পৌঁছে দেন কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে।

শিষ্যের জাদুকরী পারফরম্যান্সে ভীষণ মুগ্ধ গুরু সাম্পাওলি। ম্যাচ শেষে তাই মেসিকে প্রশংসার বন্যায় ভাসাতে ভুল করেননি কৃতজ্ঞ কোচ, ‘আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ জেতাতেই হবে এমন কোনো দায়ভার মেসির নেই। বরং ফুটবলের কাছেই তার একটি বিশ্বকাপ পাওনা আছে। প্রজন্মের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে ম্যাজিক বয়’র তা পাওয়া উচিত।’

মেসির প্রশংসা করতে গিয়ে অবশ্য দলের বাকি খেলোয়াড়দের খাটো করেননি সাম্পাওলি। তার মতে, দলীয় প্রচেষ্টাতেই কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য পূরণ হয়েছে। তিনি বলেন, এ জয় দলীয় প্রচেষ্টার ফসল। ছেলেরা অসাধারণ খেলেছে। আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ না খেলাটা অস্বাভাবিক হতো। আমরা সবাই আতঙ্কে ছিলাম। তবে আমরা জ্ঞাত ছিলাম কিভাবে ম্যাচটি জিততে হবে।

ইকুয়েডরের বিপক্ষে জয়ে শেষ পর্যন্ত হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে আর্জেন্টিনা। তবে বাছাইপর্বে তারা যেভাবে খেলেছে তাতে তাদের পক্ষে বিশ্বকাপ জেতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করা খুবই কঠিন। তবু আশায় বুক বাঁধছেন আলবিসেলেস্তে কোচ।

তিনি বলেন, সামনে দলের মানসিকতায় বড় পরিবর্তন আসবে। দল আরো গোছাবে, পরিপাটি হবে। এখনকার চেয়ে আরো শক্তিশালী হয়ে উঠবে।

ডিএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়