close
ঢাকা, সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ১০ আশ্বিন ১৪২৪

ওয়ার্নার-স্মিথের উইকেটে দৃষ্টি তাসকিনের

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ২১ আগস্ট ২০১৭, ১৯:২৩ | আপডেট : ২১ আগস্ট ২০১৭, ১৯:৪৩
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে দলে সুযোগ পেয়ে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছি। সুযোগ পেলে বল হাতে ম্যাচ জেতানো স্পেল করতে চাই। অজি অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারের উইকেট নিতে চাই। এমনই স্বপ্নের কথা জানালেন ডানহাতি পেসার তাসকিন আহমেদ।

সোমবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, টেস্টে প্রত্যেকটি উইকেট গুরুত্বপূর্ণ। অস্ট্রেলিয়ার টপঅর্ডারের ব্যাটসম্যানরা দারুণ ফর্মে আছেন। অভিজ্ঞরা তো আছেন-ই। নতুনরাও ভালো করছেন। ওয়ার্নার-স্মিথের উইকেট নেয়া আমার স্বপ্ন। সুযোগ পেলে ম্যাচ উইনিং স্পেল করতে চাই।

সীমিত ওভারের ক্রিকেটের মতোই এখন টেস্টেও পেসারদের মধ্যে প্রতিযোগিতা চলছে। স্মিথ বাহিনীর বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ঘোষিত বাংলাদেশ দলে আছেন ৩ পেসার। তাদের একজন হতে পেরে খুশি তাসকিন। ডানহাতি এ পেসার বলেন, আল্লাহর রহমতে বাংলাদেশে এখন ভালো পারফরমার আছে অনেক। তাই টেস্ট স্কোয়াডে থাকতে পারাটা নিঃসন্দেহে অন্যরকম।অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দলে থাকতে পেরে আনন্দিত এবং নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছি।

অজি পেস আক্রমণে দায়িত্বে রয়েছেন জশ হ্যাজেলউড, জ্যাকসন বার্ড ও প্যাট কামিন্স। আর বাংলাদেশ পেস আক্রমণে আছেন মুস্তাফিজুর রহমান, শফিউল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদ। অবশ্য পেস আক্রমণের দিক থেকে অস্ট্রেলিয়াকেই এগিয়ে রাখছেন তাসকিন।

তিনি বলেন, ওদের তুলনায় আমরা পিছিয়ে। তবে আমরা আগের চেয়ে ভালো অবস্থানে আছি। অনুশীলন করে নিজেদের শানিয়ে নিচ্ছি। সুইং, রিভার্স সুইং সবকিছু নিয়ে আমরা কাজ করছি। আশা করছি, আগে যা করতে পারিনি এবার আমরা তা পারবো।

ক্যারিয়ারে ৪ টেস্ট খেলে ৭ উইকেট শিকার করেছেন তাসকিন। তার দৃষ্টিতে টেস্ট ক্রিকেট অনেক কঠিন। ২২ বছরের এ তরুণ বলেন, সত্যি কথা বলতে কি, আমি বেশি টেস্ট খেলিনি। ৪টা ম্যাচ খেলে আমার মনে হয়েছে এ ফরম্যাট অনেক কঠিন। আগে তো শুধু ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি খেলতাম। এখন টেস্টও খেলছি। টেস্টে পরিকল্পনা অনুযায়ী বল করতে হয়। চেঞ্জ অব পেস দরকার। আশা করি, পরিস্থিতি অনুযায়ী আমরা খেলতে পারবো।

টেস্ট দলে মুমিনুল হক ফেরায় সন্তোষ জানিয়েছেন তাসকিন। আর চোখের সমস্যার কারণে বাদ পড়ায় মোসাদ্দেক হোসেনের জন্যও দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি। এ তুর্কি বলেন, মুমিনুল ভাইয়ের ফিরে আসাটা খুশির ব্যাপার। আবার মোসাদ্দেকের না থাকাটাও দুঃখজনক। চোখের ব্যথার কারণে সে খেলতে পারলো না। আনন্দ যেমন হচ্ছে, একইসঙ্গে খারাপও লাগছে।

ডিএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়