close
ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৭ | ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

উইম্বলডনে ভেনাসের ইতিহাস

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৪ জুলাই ২০১৭, ১৯:৫৫ | আপডেট : ১৪ জুলাই ২০১৭, ২০:১৫
৩৯ বছর পর প্রথম ব্রিটিশ হিসেবে উইম্বলডন নারী এককের সেমিফাইনালে ওঠে রেকর্ড গড়েছিলেন ষষ্ঠ বাছাই জোহানা কন্তা। তার সামনে সুযোগ ছিল ইতিহাসকে আরো সমৃদ্ধ করার। তবে তা পারলেন না। সেমিতে দশম বাছাই যুক্তরাষ্ট্রের ভেনাস উইলিয়ামসের কাছে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গেছেন তিনি। কিন্তু রেকর্ড ঠিকই গড়েছেন মার্কিন টেনিস কন্যা। সবচে’ বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে উইম্বলডনের ফাইনালে ওঠার কীর্তি গড়েছেন ৩৭ বছরের তারকা।

দিনের অপর সেমিফাইনালে অবাছাই স্লোভাকিয়ার মাগডালেনা রিবারিকোভাকে সরাসরি সেটে হারিয়েছেন ১৪তম বাছাই স্পেনের গার্বিন মুগুরুজা। নারী এককের ফাইনালে শিরোপার জন্য ভেনাসের বিপক্ষে লড়বেন তিনি।

অবশ্য দু’ সেমির মধ্যে টেনিস বিশ্বের দৃষ্টি ছিল ভেনাস-কন্তার ম্যাচের দিকে। কারণ, দু’জনের সামনেই ছিল ইতিহাস গড়ার হাতছানি। এছাড়া ইতিহাস গড়েই সেমিতে নাম লেখান তারা। ১৯৭৮ সালের পর প্রথম ব্রিটিশ হিসেবে সেমিতে ওঠেন কন্তা। আর ১৯৯৪ সালের পর সবচে’ বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে শেষ চারের টিকেট নিশ্চিত করেন ভেনাস।

তবে সেমির লড়াইয়ে ব্যর্থ হলেন ব্রিটিশ কন্যা, সফল মার্কিন সেনসেশন। ৬-৪ ও ৬-২ গেমের সরাসরি সেটে কন্তাকে হারিয়ে ফাইনালে ওঠেন ভেনাস। ম্যাচের স্থায়ীত্ব ছিল ১ ঘণ্টা ১৩ মিনিট।

এর আগে সবচে বয়সী নারী খেলোয়াড় হিসেবে  ফাইনালে ওঠার কীর্তি গড়েন চেক প্রজাতন্ত্রের মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা। ১৯৯৪ উইম্বলডনের ফাইনালে ওঠেন তিনি।

এ নিয়ে নবমবারের মতো উইম্বলডনের ফাইনালে উঠলেন ভেনাস। তবে ২০০৯ সালের পর প্রথম। ফাইনালে ওঠায় যেমন উচ্ছ্বাস আছে, তেমন শিরোপা জয়ের ক্ষুধাও আছে। ম্যাচ পরবর্তী বিবৃতিতে তারই প্রত্যয় যেনো ঝরে পড়লো এ মার্কিন কন্যার কণ্ঠে। বললেন, বেশ ক’বার এর ফাইনালে খেলেছি। সবই সৃষ্টিকর্তার কৃপা। আমি হয়তো আর বেশি সুযোগ পাবো না। তবে এটি পেলে মন্দ হয় না। কিন্তু তা সহজ হবে না। এক্ষেত্রে আমার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে হবে।  

ফাইনালেও ইতিহাস হাতছানি দিয়ে ডাকছে ভেনাসকে। গেলো জানুয়ারিতে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে ছোট বোন সেরেনা উইলিয়ামসের কাছে হেরে যান তিনি। তবে এবার তা খোয়াতে চান না। আর এটি জিতলে সবচে’ বেশি বয়সে উম্বলডন শিরোপা জয়ের কীর্তি গড়বেন তিনি। এক্ষেত্রে ভেনাস রেকর্ড ভাঙবেন সেরেনারই। কীর্তিটি রয়েছে ছোট বোনেরই দখলে।

অনাগত সন্তানের সুস্থতার কথা ভেবে এবারের উম্বলডন প্রত্যাহার করেন সেরেনা। তবে বড় বোনের ফাইনালে তিনি উপস্থিত হতে পারেন। অষ্টম গ্র্যান্ডস্ল্যাম প্রত্যাশী ভেনাস বলেন, আমি তাকে ভীষণ মিস করছি।আমি আশাবাদী, ও এখানে আসবে। তবে আমি বলবো, তুমি এসো না।

ভেনাসের মতোই সহজ জয় দিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছেন মুগুরুজা। সেমির লড়াইয়ে রিবারিকোভাকে ৬-১, ৬-১ গেমের সরাসরি সেটে হারিয়েছেন তিনি।

গেলো বছর ফ্রেঞ্চ ওপেন দিয়ে ক্যারিয়ারে প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম জেতেন মুগুরুজা। সেই হিসাবে ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় গ্র্যান্ডস্ল্যাম জয়ের সুযোগ তার সামনে। তবে কাজটি বেশ কঠিন হবে বলে মানছেন তিনি।  এ স্প্যানিশ তারকা বলেন, ফাইনালে নিসন্দেহে শক্ত প্রতিপক্ষ ভেনাস। টেকনিকের দিক দিয়ে ও বেশ পারদর্শী। সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। তাকে হারাতে সেরাটাই খেলতে হবে।

ডিএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়