বরিশালে ভোট বর্জন করলো ইসলামী আন্দোলন

প্রকাশ | ৩০ জুলাই ২০১৮, ১২:২১ | আপডেট: ৩০ জুলাই ২০১৮, ১২:৩৫

অনলাইন ডেস্ক
ছবি-সংগৃহীত

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোট থেকে সরে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী ওবাইদুর রহমান মাহবুব। 

ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেয়া ও এজেন্ট বের করে দেয়ার অভিযোগ এনে সোমবার ভোটের সোয়া তিন ঘণ্টার মধ্যেই তিনি এ ঘোষণা দিলেন। 

হাতপাখা প্রতীকের এই প্রার্থী জানান, এখানে সুষ্ঠু নির্বাচনের কোনো পরিবেশ নেই। পুলিশ ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিচ্ছে। এই পরিবেশে ভোটে থাকার কোনো মানে হয় না।

এর আগে সকাল ৮টা থেকে ভোট শুরু হয় নগরীতে, চলবে বিকেল চারটা পর্যন্ত।
--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন  : বরিশালে মেয়র প্রার্থী ডা. মনিষার ওপর দুই দফায় হামলা
--------------------------------------------------------

এদিকে সকালে বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার অভিযোগ করেন, নগরীর বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে তার পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়া হচ্ছে।

বিএনপির মেয়রপ্রার্থী বলেন, বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে আমার ৫০ জন পোলিং এজেন্টকে বের করে দেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা পালন করেছে পুলিশ। যেখানে পুলিশের আমার এজেন্টদের সুরক্ষা দেয়ার কথা সেখানেই তারাই বের করে দিচ্ছে। 

বরিশালে ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৪২ হাজার ১৬৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ২১ হাজার ৪৩৬ জন এবং নারী ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ২০ হাজার ৭৩০ জন।

নগরীতে ১২৩টি কেন্দ্রের ৭৫০টি বুথে বিরামহীনভাবে ভোটগ্রহণ চলবে। এরমধ্যে ৪টি ওয়ার্ডের ১টি কেন্দ্রে ৭৮টি বুথে ভোট গ্রহণ করা হবে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম পদ্ধতিতে।

বিসিসি নির্বাচনে ১২৩টি কেন্দ্রের মধ্যে ৫০টি অধিক গুরুত্বপূর্ণ (ঝুঁকিপূর্ণ) ও ৬২টি গুরুত্বপূর্ণ এবং ১১টি কেন্দ্রকে সাধারণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করেছে পুলিশের বিশেষ শাখা।

অধিক গুরুত্বপূর্ণ প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ, এপিবিএন এবং আনসার মিলিয়ে ১৪ জন সশস্ত্রসহ মোট ২৪ জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ ও সাধারণ কেন্দ্রে ১২ জন সশস্ত্র পুলিশ, এপিবিএন ও আনসারসহ মোট ২২ জন সদস্য দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন। কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন ছাড়ও পুলিশের একাধিক দলকে টহল দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি রিজার্ভ এবং স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন  : 

এসএস