ফিরোজা বেগমের জন্মদিনে গুগলের ডুডল

প্রকাশ | ২৮ জুলাই ২০১৮, ১২:৪৫ | আপডেট: ২৮ জুলাই ২০১৮, ১২:৫০

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক

১০ বছর বয়সে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের কাছ থেকে গান শিখেছিলেন তিনি। বাংলাদেশ আর ভারতবর্ষে তাকে চেনে গানের পাখি বলে। ১৯৩০ সালের এই দিনে (২৮ জুলাই) জন্মগ্রহণ করেছিলেন কিংবদন্তী বাংলাদেশি সংগীতশিল্পী ফিরোজা বেগম। নজরুল সংগীতকে বাংলাদেশে জনপ্রিয় করে তোলার একমাত্র পুরোধা হিসেবে তিনি আমৃত্যু কাজ করে যান তিনি। সফলও হয়েছিলেন তিনি।

ফিরোজা বেগমের সংগীতের প্রতি অসামান্য অবদানকে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য গুগল সার্চ ইঞ্জিন নতুন ডুডল গতকাল রাত থেকে চালু করে। শনিবার প্রথম প্রহর থেকেই গুগলের হোমপেজে এ ডুডল দেখতে পাচ্ছেন ব্যবহারকারীরা। গুগলের এই ডুডলটি বানিয়েছেন ডুডলার অলিভিয়া হুইন।

ডুডলে দেখা যাচ্ছে, মাইক্রোফোনের সামনে গান গাইছেন ফিরোজা বেগম। পরনে শাড়ি, গলায় বড় মালা আর খোপায় ফুটে উঠেছে তার চিরাচরিত প্রতিচ্ছবি।

ফিরোজা বেগমের জন্ম ১৯৩০ সালের ২৮ জুলাই ফরিদপুরের গোপালগঞ্জ মহকুমার (বর্তমান জেলা) রাতইল ঘোনাপাড়া গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম জমিদার পরিবারে। তার বাবার নাম খান বাহাদুর মোহাম্মদ ইসমাইল এবং মায়ের নাম বেগম কওকাবুন্নেসা। শৈশবেই তার সঙ্গীতের প্রতি অনুরাগ জন্মে।

১০ বছর বয়সে ফিরোজা বেগম কাজী নজরুলের সান্নিধ্যে আসেন এবং তার কাছ থেকে তালিম গ্রহণ করেন।

ফিরোজা বেগম ষষ্ঠ শ্রেণিতে অধ্যয়নকালে অল ইন্ডিয়া রেডিওতে গানে কণ্ঠ দেন। ১৯৪২ সালে ১২ বছর বয়সে বিখ্যাত গ্রামোফোন কোম্পানি এইচএমভি থেকে ৭৮ আরপিএম ডিস্কে ইসলামী গান নিয়ে তার প্রথম রেকর্ড বের হয়।

নজরুলের গান নিয়ে প্রকাশিত তার প্রথম রেকর্ড বের হয় ১৯৪৯ সালে। কাজী নজরুল অসুস্থ হওয়ার পর ফিরোজা বেগম নজরুল সঙ্গীতের শুদ্ধ স্বরলিপি ও সুর সংরক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ৩৮০টির বেশি একক সঙ্গীতানুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন প্রখ্যাত এই সঙ্গীত শিল্পী। নজরুল সঙ্গীত ছাড়াও তিনি আধুনিক গান, গজল, কাওয়ালি, ভজন, হামদ ও নাতসহ বিভিন্ন ধরনের সঙ্গীতে কণ্ঠ দিয়েছেন।

সংগীতে তার অসামান্য কীর্তির জন্য তিনি ১৯৭৯ সালে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরষ্কার স্বাধীনতা পদক লাভ করে থাকেন। এছাড়াও নেতাজী সুবাস চন্দ্র পদক, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি স্বর্ণপদক, নজরুল একাডেমি পদক, সত্যজিৎ রায় পদকসহ অসংখ্য পুরষ্কার ও সম্মাননায় ভূষিত হন।

শুভ জন্মদিন গানের পাখি ফিরোজা বেগম।

কেএইচ/এমকে