জেসিআই বাংলাদেশ এর ইয়ুথ লিডারশিপ কনক্লেভ

প্রকাশ | ২৫ মার্চ ২০১৮, ১৫:৪০ | আপডেট: ২৫ মার্চ ২০১৮, ১৯:১২

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক

জেসিআই বাংলাদেশ আয়োজিত ‘ইয়ুথ লিডারশিপ কনক্লেভ: জাতি গঠনে তরুণ সমাজের ভূমিকা’ শীর্ষক একটি উন্নয়নমূলক কর্মশালা ও আলোচনা সভার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল ২৪ মার্চ  ঢাকার গুলশান ২ এ অবস্থিত হোটেল লেকশোরের লা ভিটা হলে কর্মশালাটি হয়। এতে উপস্থিত অতিথিদের সামনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রী মুস্তাফা জব্বার। অনুষ্ঠানে তরুণদের উদ্দেশে বক্তব্য দেন শক্তি ও খনিজ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও এমপি নসরুল হামিদ বিপু।

জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল বিশ্বের তরুণ এবং কর্মক্ষম নাগরিকদের নিয়ে গঠিত একটি বিশ্বব্যাপী সংস্থা যারা তাদের সমাজের সমস্যাগুলোর স্থায়ী সমাধানের জন্য নিযুক্ত ও প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। জেসিআই সমাজের সকল স্তর থেকে কর্মক্ষম নাগরিক নিযুক্ত করে, তরুণ সমাজকে বিকাশ লাভের সুযোগ করে দেয়। তরুণরা যাতে সমাজের ভালো পরিবর্তন আনতে পারে সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে জেসিআই।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: ক্ষমা চেয়ে ব্রিটিশ পত্রিকায় জাকারবার্গের বিজ্ঞাপন
--------------------------------------------------------

বাংলাদেশ তার জনশক্তি দ্বারা পরিচালিত একটি সম্ভাবনাময় দেশ। বাংলাদেশের সবচেয়ে সম্ভাবনাময়য় সম্পদ তার উদীয়মান যুবসমাজ। দিনব্যাপী আয়োজিত ‘ইয়ুথ লিডারশিপ কনক্লেভ’ সভাটির মুখ্য উদ্দেশ্য ছিল তরুণ সমাজের মধ্যে নেতৃত্ব এর গুণাবলী গড়ে তোলা; কীভাবে তারা নিজেদেরকে পরিচালিত করবে এবং ভবিষ্যতে যোগ্য নেতা হিসেবে কর্মক্ষম নাগরিকদের নিয়ে একটি সমৃদ্ধিশালী দেশ গড়ে তুলবে। ২৫০ এরও বেশি তরুণ, যারা মূলত জে সি আই এর সদস্য এবং দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে তরুণ পেশাদার, যুবসমাজ, তরুণ উদ্যোক্তা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীবৃন্দ এই উন্নয়নমূলক কর্মশালাটিতে অংশ নেয়।

সভাটিতে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন বিশিষ্ট এবং স্বনামধন্য বিষয়ভিত্তিক বিশেষজ্ঞ, কর্পোরেট আইকন, শিল্প পথিকৃৎ, বিভিন্ন সংগঠনের নেতাবৃন্দ এবং দেশের সফল চিন্তাবিদসহ আরও অনেকে। তারা বাংলাদেশের প্রযুক্তিগত উন্নয়ন এর জন্য দিকনির্দেশনা; দেশে কাজের ক্ষেত্র, বাণিজ্যিক ভবিষ্যৎ; জাতি হিসেবে বাংলাদেশের উন্নতির সম্ভাবনা এবং তরুণদের ভূমিকা ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে তাদের চিন্তা-চেতনা ও বক্তব্য কয়েকটি পর্বের মাধ্যমে সভায় অংশগ্রহণকারীদের মাঝে পেশ করেন। সভাটির চারটি প্রধান বিষয়বস্তু ছিল “আগামী প্রজন্মের প্রযুক্তি”, “বাংলাদেশ- এশিয়ার পরবর্তী টাইগার”, “উদ্যোক্তার ভবিষ্যৎ”, “পরিবর্তন এর শুরু আমাকে দিয়ে” পর্বগুলোর মাধ্যমে উপস্থিত তরুণরা একটি উন্নত দেশ গঠনের উদ্দেশে কাজ করার জন্য অঙ্গীকারাবদ্ধ ও উদ্বুদ্ধ হয়।

অনুষ্ঠানটির ‘আগামী প্রজন্মের প্রযুক্তি’ পর্বটির বক্তা হিসেবে বেসিস এর প্রধান জনাব সায়েদ আলমাস কবির, মাইক্রোসফট বাংলাদেশ এর ব্যবস্থাপক সোনিয়া বশির খান, বাংলাদেশ ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান এর পরিচালক জনাব আশিষ চক্রবর্তী  এবং বেসিস এর পরিচালক জনাব মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল উপস্থিত ছিলেন।

দ্বিতীয় পর্ব ‘বাংলাদেশ- এশিয়ার পরবর্তী টাইগার’ এর বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংক এর প্রধান অর্থনীতিবিদ জনাব ফয়সাল আহমেদ, এফ বি সি সি আই এর প্রধান জনাব মোঃ শরিফুল ইসলাম মহিউদ্দিন, এম সি সি আই এর প্রধান জনাবা নাহিদ কবির, বি জি এম ই এ এর প্রাক্তন সভাপতি জনাব আতিকুল ইসলাম এবং ডিসিসিআই এর পরিচালক জনাব ওয়াকার এ চৌধুরী।

‘উদ্যোক্তাদের ভবিষ্যৎ’ নামক পর্বটির বক্তা হিসেবে বি ওয়াই এল সির সভাপতি জনাব এজাজ আহমেদ , র‌্যাংগস এর পরিচালক সোহানা রউফ চৌধুরী, সামিট গ্রুপ এর পরিচালক আজিজা খান এবং কনফিডেন্স গ্রুপ এর ভাইস চেয়ারম্যান জনাব ইমরান করিম উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষে জে সি আই এর প্রেসিডেন্ট জনাব মার্ক ব্রায়ান লিম , জে সি আই এর  প্রাক্তন ভাইস প্রেসিডেন্ট জনাব ওয়াকার এ চৌধুরী, জনাব নেসার মাকসুদ খান, জনাব দাতা মাগফুর এবং জনাব আমজাদ হোসেন “পরিবর্তন এর শুরু আমাকে দিয়ে” পর্বটিতে বক্তব্য রাখেন।

জে সি  আই বাংলাদেশ এই অনুষ্ঠানে তাদের ওয়েবসাইটের নতুন সংস্করণ উদ্বোধন করে। ওয়েবসাইট সংস্করণে পার্টনার ছিল আই-মেশ।

জে সি আই বাংলাদেশ এর জাতীয় নিয়ন্ত্রক বোর্ড ও মেম্বারদের পক্ষ থেকে জে সি আই বাংলাদেশ এর প্রেসিডেন্ট জনাব ফায়াজ আতিকুল ইসলাম প্রেরণাদায়ক এই অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনা করেন। আলোচনা সভাটির  আহবায়ক ছিলেন জে সি আই বাংলাদেশ এর জাতীয় আইন উপদেষ্টা সারাহ কামাল।

আরও পড়ুন: 

কেএইচ/ পি