• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

অ্যাপলকে হার মানালো স্পটিফাই!

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
|  ০৬ মার্চ ২০১৮, ১১:৫১ | আপডেট : ০৬ মার্চ ২০১৮, ১২:০৮
গান শোনার স্ট্রিমিং অ্যাপ স্পটিফাইয়ের এতোদিনের প্রতিযোগী ছিল তাদেরই মতো অন্যান্য মিউজিক স্ট্রিমিং সাইট যেমন- প্যান্ডোরা, এমওজি, গ্রোভশার্ক ও আরডিও। পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় মিউজিক স্ট্রিমিং সাইট বলে পরিচিত এ অ্যাপটি এবার অ্যাপল মালিকানাধীন অ্যাপল মিউজিকের সাথে টেক্কা দিচ্ছে। গত বুধবার নিউইয়র্ক স্টক এক্সচেঞ্জে প্রথমবারের মতো শেয়ার ছাড়ার প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য পেপারওয়ার্ক সাবমিট করেছে কোম্পানিটি। খবর সিএনএন’র।

কোম্পানিটি প্রাথমিকভাবে ১০০ কোটি ডলারের শেয়ার বাজারে ছাড়বে বলে জানা গেছে। এর মাধ্যমে নিজেদের অবস্থানকে আরও সুসংহত করবে বলে বাজার বিশ্লেষকদের অভিমত। সাধারণত দেখা যায় সম্ভাবনাময় কোনো স্টার্টআপ বাজারে এলে বড় কোম্পানিগুলো সেটিকে অধিগ্রহণের মাধ্যমে নিজেদের দখলে রাখতে চায়। কিন্তু অ্যাপল কেন স্পটিফাইকে অধিগ্রহণ করতে চায়নি এ সম্পর্কে স্পটিফাইয়ের চিফ কনটেন্ট অফিসার কেন পার্কস বলেন, অ্যাপল আসলে ভাবতেই পারেনি আমরা এতো বড় প্রতিষ্ঠান হয়ে উঠবো। 

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: চীনে অ্যাপলের আইক্লাউড স্থানান্তরে শঙ্কায় অ্যামনেস্টি!
--------------------------------------------------------

অনেকদিন থেকেই অ্যাপলের আইটিউনস স্টোর মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে নেতৃস্থানীয়ের জায়গা দখল করে রেখেছে। সেটা শুধু ডাউনলোডের ক্ষেত্রে কিন্তু স্ট্রিমিংয়ের ক্ষেত্রে তাদের তেমন ভাবনা ছিল না।

এর ফলে মিউজিক স্ট্রিমিংয়ের বাজার একচেটিয়া দখল করে ফেলেছে স্পটিফাই। দশ বছর পার করা এ স্ট্রিমিং অ্যাপটির সাথে টেক্কা দিতে এরইমধ্যে বাজারে এসেছে অ্যাপল মিউজিক, গুগল এবং অ্যামাজনের মিউজিক স্ট্রিমিংয়ের অ্যাপ। এ টেক জায়ান্টগুলোর মিউজিক স্ট্রিমিং অ্যাপ বাজারে আসার পর বাজার বিশ্লেষকরা যদিও বলেছিলেন স্পটিফাইয়ের দিন শেষ, আখেরে সেটা হয়েছে উলটো। স্পটিফাইয়ের মিউজিক স্ট্রিমিং ব্যবসার ধারেকাছে যেতে পারেনি কেউ।

যেখানে অ্যাপল মিউজিকের পেইড সাবস্ক্রাইবার ৩৬ মিলিয়ন সেখানে স্পটিফাইয়ের সাবস্ক্রাইবার ৭০ মিলিয়ন।

প্রযুক্তি বিশ্লেষকরা বলছেন, স্পটিফাই এ ব্যবসায় অ্যাপলকে হারাতে পেরেছে তার প্রধান কারণ হচ্ছে স্পটিফাইকে অ্যাপলের মতো এতোগুলো পণ্য নিয়ে কাজ করতে হয় না।

যদিও অ্যাপল বড়সড়ভাবে স্ট্রিমিং ইন্ডাস্ট্রি দখল করার বড় কোনো পরিকল্পনা করছে না, তবু অ্যাপলের সম্প্রতি নেয়া এক সিদ্ধান্তে স্পটিফাইকে ছোটখাট হলেও একটা ধাক্কা দেয়ার চেষ্টা লক্ষ্য করা গেছে। সম্প্রতি অ্যাপল তাদের অ্যাপ স্টোর থেকে যারা স্পটিফাইয়ে সাবস্ক্রিপশন করবে, সেই আয় থেকে ৩০ শতাংশ সাবস্ক্রিপশন ফি কেটে রাখছে। এতে করে ব্যবহারকারীদের অর্থ গুণতে না হলেও ঠিকই পকেট কাটা যাচ্ছে স্পটিফাইয়ের। এ সম্পর্কে স্পটিফাইয়ের প্রতিষ্ঠাকালীন বিনিয়োগকারী এবং দীর্ঘকালীন বোর্ড মেম্বার পার জোর্গেন পারসন বলেন, জটিল পরিস্থিতি সৃষ্টি হচ্ছে।

যদিও গত বছর স্পটিফাই ১৫০ কোটি ডলার ক্ষতির মুখ দেখেছে। তারপর বিনিয়োগকারী ও ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্টদের কল্যাণে এখনও টিকে আছে কোম্পানিটি।

ছোট প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হয়েও যে বড় টেক জায়ান্টগুলোকেও টেক্কা দেয়া যায়, তারই প্রমাণ স্পটিফাইয়ের এ উদ্যোগ। এবার দেখার পালা গোলিয়াথের সাথে লড়াইয়ে ডেভিড কতক্ষণ টিকতে পারে।

আরও পড়ুন:

কেএইচ/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়