রোহিঙ্গা সংকটে গণমাধ্যমের ভূমিকা প্রশংসাজনক

প্রকাশ | ০৬ জুলাই ২০১৮, ১৭:২৩ | আপডেট: ০৬ জুলাই ২০১৮, ১৭:২৮

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট

রোহিঙ্গা সংকটকে পুরো বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে অসাধারণ ভূমিকা পালন করেছে বাংলাদেশ গণমাধ্যম। সকালে ডেইলি স্টার সেন্টারে আলোচনায় এ কথা বলেন বাংলাদেশে নিয়োজিত সুইডেনের রাষ্ট্রদূত শারলোটা স্লাইটার ও নরওয়ের রাষ্ট্রদূত সিডসেল ব্লেকেন।

লক্ষ্য নিউজ প্রেজেন্টেশন একাডেমী আয়োজিত 'রোহিঙ্গা সংকটে গণমাধ্যমের ভূমিকা' শীর্ষক মুক্ত আলোচনায় তাঁরা বলেন, মিয়ানমারের ওপর যে আন্তর্জাতিক মহলের চাপ সৃষ্টি হয়েছে তা রোহিঙ্গা ইস্যুটি নিয়ে একাধিক দিক থেকে রিপোর্টিং এর কারণে। পাশাপাশি তাঁরা আরও বলেন, বাংলাদেশের সরকার ও জনগণসহ গণমাধ্যমের কাজ সত্যিই প্রশংসাজনক।

চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের হেড অব নিউজ রাহুল রাহা বলেন, গণমাধ্যম প্রশংসার কাজ করেছে, তবে পেশাদারিত্বে আত্মতুষ্টির স্থান নেই।
 
দৈনিক ইত্তেফাক ডিপ্লোম্যাটিক এডিটর মাইনুল আলম বলেন, আমি মনে করি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়াটির শেষ হতে ৫-১০ বছর সময় লেগে যাবে। আন্তর্জাতিক মহলকে কেবল মিয়ানমারের ওপর চাপ দিলেই হবে না, সময় হয়েছে যথাযথ উদ্যোগ নেওয়ার। 

তবে আলোচকরা বলেন, রোহিঙ্গা নারী, শিশুসহ স্পর্শকাতর ইস্যুগুলোতে আরো একটু সাবধান হতে হবে। অন্যান্যের মধ্যে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক রাষ্ট্রদূত হুমায়ন কবির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, প্রফেসর ড. আবুল মনসুর, ইউএনএইচসিআর এর প্রোটেকশন অফিসার ভিনসেন্ট গুলে ও পাবলিক ইনফরমেশন অফিসার জোসেফ সূর্য, কানাডা হাইকমিশনের পলিটিক্যাল ও ইকোনোমিক অ্যাডভাইসার সৈয়দ শাহনেওয়াজ মহসিন ও চলচ্চিত্র পরিচালক নোমান রবিন।

সাংবাদিক মোর্শেদ হাসিব হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতেই রোহিঙ্গাদের ওপর নির্মিত নোমান রবিনের “আ কোয়ার্টার মাইল” এর কিছু অংশ প্রদর্শিত হয়। 

এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন লক্ষ্যর প্রধান নির্বাহী রাইসুল হক চৌধুরী, সাংবাদিক মাকসুদ উন নবী ও সাংবাদিক জাকিয়া আহমেদ। 
 
এসজে