• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

মিনায় লাখো মুসল্লির সঙ্গে বাংলাদেশি হাজিরা

মুসা জলিল, মদিনা প্রতিনিধি
|  ১৯ আগস্ট ২০১৮, ১৬:২৯ | আপডেট : ১৯ আগস্ট ২০১৮, ১৬:৩৮
বিশ্বের প্রায় ২০ লাখের বেশি মুসলমান মিনায় অবস্থান নেয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে পবিত্র হজ পালনের আনুষ্ঠানিকতা। মহান আল্লাহর কাছে হাজিরা দিতে আসা এই হাজিরা সোমবার আরাফাতের ময়দানে জড়ো হবেন, যেটিকে হজের মূল অনুষ্ঠান বলা হয়। মঙ্গলবার মহান আল্লাহর উদ্দেশে পশু কুরবানির মধ্য দিয়ে শেষ হবে হজের আনুষ্ঠানিকতা।

সারা বিশ্ব থেকে আগত সন্মানিত হজযাত্রীরা পবিত্র হজব্রত পালনের উদ্দেশ্যে শনিবার বাদ আছর থেকে মিনা অভিমুখে যাত্রা করেন।

বাংলাদেশ সরকারের হজ বুলেটিন থেকে জানা গেছে, বাংলাদেশ হজ অফিস ও হজ আইটি দলের সমন্বিত অগ্রবর্তী একটি দল শনিবার বিকেলেই মিনাতে পৌঁছেছে এবং তাঁবুতে অফিস স্থাপন করে নিজ নিজ কার্যক্রম শুরু করেছে।

এ বছর বাংলাদেশ থেকে ব্যবস্থাপনা সদস্যসহ মোট এক লাখ ২৭ হাজার ২৯৭ জন সৌদি আরবে পৌঁছেছেন।

-----------------------------------------------------
আরও পড়ুন : সিনিয়র স্টাফ নার্স নিয়োগ পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল প্রকাশ
-----------------------------------------------------

সাদা কাপড়ে আচ্ছাদিত বিভিন্ন জাতি-বর্ণ-ভাষা, জাতীয়তার লাখো মুসলমান কেউ বাসে, কেউ গাড়িতে, কেউ বা পায়ে হেঁটে মিনার পথে রওনা হন। তাদের সবার মুখে ছিল ‘লাব্বায়েক আল্লাহুম্মা লাব্বায়েক, লাব্বায়েক লা শারিকা লাকা লাব্বায়েক, ইন্নাল হামদা ওয়াননি'মাতা লাকা ওয়ালমুল্ক’ ধ্বনি।

এর অর্থ হল, ‘আমি হাজির। হে আল্লাহ আমি হাজির, তোমার কোনও শরিক নেই, সব প্রশংসা ও নিয়ামত শুধু তোমারই, সব সাম্রাজ্যও তোমার।’

মদিনা থেকে মক্কার উদ্দেশে বাংলাদেশি হাজিরা

এই হাজিরা আজ রোববার মিনায় ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে সময় কাটাবেন। পরে হজের মূল আনুষ্ঠানিকতার জন্য আগামীকাল সকালে আরাফাতের ময়দানে জড়ো হবেন। তারা সেখানে সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত থাকবেন।

আরাফাতের ময়দানে উপস্থিত না হলে হজের আনুষ্ঠানিকতা পূর্ণ হয় না।

উল্লেখ্য, জিলহজ মাসের নবম দিনটি আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করে ইবাদতে কাটানোই হল হজ। আরাফাত থেকে মিনায় ফেরার পথে সোমবার সন্ধ্যায় মুজদালিফায় জামাতের সঙ্গে মাগরিব ও এশার নামাজ আদায় করবেন হাজিরা। মুজদালিফায় থাকার সময় তারা পাথর সংগ্রহ করবেন, যা মিনার জামারায় শয়তানকে উদ্দেশ্য করে ছোড়া হবে।

মঙ্গলবার সকালে মিনায় ফিরে সেই পাথর প্রতীকী শয়তানকে লক্ষ্য করে ছুড়বেন হাজিরা। এরপর কুরবানি দিয়ে ইহরাম ত্যাগ করবেন। পরে কাবা শরিফকে বিদায়ী তাওয়াফের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে হজের আনুষ্ঠানিকতা।

এ/এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়