• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

রোজার বিশেষ আয়োজন করবে না মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ২৭ মে ২০১৭, ১৫:৪২ | আপডেট : ৩০ মে ২০১৭, ১৭:৫৬
প্রতিবছর ইফতার এবং ঈদুল ফিতরের জন্য বিশেষ আয়োজন করলেও, এবছর কোনও অনুষ্ঠান করছে না আমেরিকার পররাষ্ট্র দপ্তর। এ সংক্রান্ত একটি অনুরোধ খারিজ করে দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন।

পররাষ্ট্র দপ্তরের দু’কর্মকর্তার বরাতে ব্রিটেন ভিত্তিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

১৯৯৯ সাল থেকে রিপাবলিকান বা ডেমোক্র্যাট যারাই ক্ষমতায় থাকুক না কেন, পররাষ্ট্র দপ্তর ইফতার বা ঈদুল ফিতরের অনুষ্ঠান আয়োজন করে আসছে।

কংগ্রেস মেম্বার, মুসলিম সিভিল সোসাইটি ও কমিউনিটি লিডার, মুসলিমদেশগুলোর কূটনীতিবিদ এবং দেশটির উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা এতে অংশ নেন।

প্রতিবছরের মতো পররাষ্ট্র দপ্তরের ধর্ম বিষয়ক কার্যালয় ঈদের একটি অনুষ্ঠান আয়োজনের অনুরোধ করেছিল। কিন্তু টিলারসন সে অনুরোধ খারিজ করে দিয়েছেন বলে দুই কর্মকর্তা জানান।

তবে জনসমক্ষে কথা বলতে বিধিনিষেধ থাকায় ওই কর্মকর্তারা নিজেদের নাম প্রকাশ করতে চাননি।

রয়টার্সের কাছে আসা গেলা ৬ এপ্রিলের এক নথিতে দেখা যায়, পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে ঈদ উদযাপনে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হলেও টিলারসন তা স্থগিত করেন।

এ বিষয়ে দেশটির পররাষ্ট্র দপ্তরের এক মুখপাত্র জানান, ঈদ উদযাপনে অনুষ্ঠান আয়োজন করা যায় কিনা, সে চেষ্টা করা হচ্ছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মার্কিন রাষ্ট্রদূতদের এ উপলক্ষে অনুষ্ঠান আয়োজন করতে উৎসাহ দেয়া হয়।

দেশটির সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেডেলিন অলব্রাইট এ বিষয়ে বলেছেন, দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে রমজান মাসে আমেরতিকার কূটনীতিবিদদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করে আসছিলো।

সাবেক মার্কিন কূটনীতিক ফারাহ পণ্ডিত বলেন, যদি টিলারসন এ বছর রোজায় কোনও অনুষ্ঠান আয়োজন না করেন, তাহলে এ বার্তাই সামনে আসবে যে, ট্রাম্প প্রশাসন মুসলিমদের গুরুত্বপূর্ণ মনে করে না।

বুশ ও ওবামা প্রশাসনে দায়িত্বে থাকা এ কর্মকর্তা রমজানে আয়োজনগুলো অন্যতম আয়োজক ছিলেন।

তিনি আরো বলেন, এতে স্পষ্ট হবে মুসলিমদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তুলতে চায় না ট্রাম্প প্রশাসন।

গেলো বছরের নির্বাচনের আগে থেকেই নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার প্রশাসনের ‘মুসলিমবিদ্বেষী’ নীতির সমালোচনা করে আসছেন মুসলমানরা।

দায়িত্ব গ্রহণের পর ‘আরব ইসলামিক আমেরিকান সামিট' এ যোগ দিতে প্রথম বিদেশ সফরে সৌদি আরব যান ট্রাম্প। এতে যোগ দিয়ে ইসলামের শান্তিপূর্ণ দিক তুলে ধরেও বক্তব্য রাখেন তিনি। সফরে  ৫০টিরও বেশি মুসলিম দেশের নেতাদের সঙ্গে দেখা করেন ট্রাম্প।

ওয়াই/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়