close
ঢাকা, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর ২০১৭ | ০৫ কার্তিক ১৪২৪

রঙধনুর রঙে রাঙানো পাঁচ রঙা নদী (ভিডিও)

শামীমা নাসরিন
|  ২১ এপ্রিল ২০১৭, ১২:১৪ | আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০১৭, ১৭:১০
স্বচ্ছ আর বর্ণহীন হবে নদীর পানি এটাই স্বাভাবিক। রংধনুর মত নদীর পানি হতে পারে এটা হয়তো অনেকে জানেন না। কিন্তু বাস্তবে এমনই এক বিস্ময়কর নদী রয়েছে যার পানি হরেক রকমের। নাম তার কানো ক্রিস্টালস।

বিস্ময়ের বিশ্বে, কলম্বিয়ার দুর্লভ পাঁচ রঙা এ নদীর অবস্থান দেশটির সেরানিয়া দ্য লা ম্যাকারেনা’য়। ইংরেজিতে যা রিভার্স অফ ফাইভ কালার্স নামে পরিচিত। বিশ্বের সবচে’ সুন্দর নদী হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে তরল রঙধনুর মতো বিরল নদীটি।

কানো ক্রিস্টালস্ রঙধনুর রঙে রাঙানো পাঁচ রঙা নদী। দেখলে যে কারে মন ছুঁয়ে যাবে খুব সহজে। নিমিষেই হারিয়ে যাবে প্রকৃতির স্বপ্ন রাজ্যে। সেরানিয়া দ্য লা ম্যাকারেনা প্রদেশের দুর্গম পাহাড়ি এলাকার এ নদী বিশ্বের সবচে’ অদ্ভূত ও সুন্দর। যার দৈর্ঘ্য ১শ’ কিলোমিটার, চওড়া ২০ মিটার।

বিশ্বের অন্য সব নদীর চেয়ে ভিন্ন এ নদী রঙের স্বর্গ। যা অন্য আর কোথাও নেই। একমাত্র কানো ক্রিস্টালেস’ই আছে, নুড়িপাথর-শ্যাওলা-জলজ উদ্ভিদসমৃদ্ধ নানা রঙের পানির অসাধারণ প্রবাহ।

বর্ষা ও শুষ্ক ঋতুর মাঝামাঝি নদীতে পানির স্তর এবং স্রোত কমে যায়। এ সময় সূর্যের আলোয়, ম্যাকারেনিয়া ক্লাভিগে নামে এক ধরণের জলজ উদ্ভিদ জন্মে। বিচিত্র এ মসের কারণেই রঙিন হয়ে ওঠে স্ফটিকস্বচ্ছ নদীর পানি।

ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে নদীটি অসাধারণ ভিন্ন রূপে সাজলেও রঙের খেলা থাকে সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর পর্যন্ত। নদীর বাঁকে বাঁকে আছে অনেক জলপ্রপাত ও ঝর্ণা। আছে ছোট-বড় গর্ত। যা তরল রঙধনু নদীকে করেছে রহস্যময়।

উদ্ভিদে ঘেরা হলেও কানো ক্রিস্টালেস এ মাছ নেই। বালুকণার পরিমাণ কম থাকায়, পানিও বেশ স্বচ্ছ। এর রূপে কেবল কলম্বিয়ানরাই নয়, আকৃষ্ট হন বিশ্বের অসংখ্য পর্যটক।

জলবায়ু, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য রক্ষা ও ফার্ক গেরিলাদের তৎপরতার জন্য বেশ ক’বছর বন্ধ ছিলো পর্যটকদের যাতায়াত। তবে ২০০৯ থেকে আবারো সবার জন্য পাঁচ রঙা নদীটি খুলে দেয় কলম্বিয়া সরকার।

এইচটি/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়