• ঢাকা শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫

চাই আলাদা হেয়ার স্টাইল

অনলাইন ডেস্ক
|  ২৩ জানুয়ারি ২০১৭, ১৩:১০ | আপডেট : ২৩ জানুয়ারি ২০১৭, ১৩:৩০
কৈশোরে কিংবা তারুণ্যে পছন্দের সিনেমার হিরোর মতো করে চুল রাখার প্রবণতা নিশ্চয়ই সবার মাঝেই কাজ করে থাকে।কারণ, ছেলেদের সৌন্দর্যের বড় এক নির্ণায়ক  হচ্ছে-হেয়ার স্টাইল।তবে আজকাল আইডল হিসেবে কেবল চিত্রনায়কই না, জায়গাটা দখলে নিয়েছেন মডেল, সঙ্গীত তারকা, খেলার জগতের আইকনরাও। মূল কথা, সেলিব্রেটি, তিনি যে অঙ্গণেরই হোন না কেনো-বৈশিষ্ট্যমূলক কিংবা স্বকীয় হেয়ার স্টাইল সুবাদে হয়ে উঠছেন তারুণ্যের অনুসরণীয়।

আর সেইসঙ্গে বলতেই হয়, ছেলেদের চুলের কাটে এখন বেশ পরিবর্তন এসেছে । নানান কাটের মধ্যে বেশি কদর রয়েছে ‘লেয়ার’ ও ‘স্পাইক’র। তবে অনেকে চুল রিবন্ডিং করতেও পছন্দ করেন। আবার অনেকেই ঝোঁক-শুধুই পছন্দের তারকার মতো করে চুল কাটার প্রতি। তবে চুলের যে কোনো কাট দেয়ার আগে হেয়ার এক্সপার্টদের পরামর্শ নেয়া উচিত। কারণ সবার চেহারার সঙ্গে সব ধরনের কাট ভালো লাগে না। আর তাই চুলের কাটে একটু পরিবর্তন এনে আপনিও সবার কাছে নিজেকে একটু ভিন্নভাবে তুলে ধরতে পারেন।জেনে নেয়া যাক চুলের অন্যরকম কিছু কাট সম্পর্কে।                              

ফেড কাট : বর্তমানে এই কাটটি বেশ জনপ্রিয়। চুলের দৈর্ঘ্য সবচে’ কম রেখে যে কাট দেয়া হয় সেটিই ফেড কাট। এই স্টাইলের চুলের কাটে মাথার পেছনে এবং কানের ওপরে চুল প্রায় থাকে না। কানের একটু ওপর থেকে চুল বড় হওয়া শুরু করে। অপরদিকে মাথার পেছনে ওপরের অর্ধেক থেকে চুল হালকা বড় হতে থাকে। এই স্টাইল আপনার লুকে এনে দেবে ভিন্ন মাত্রা।

ক্ল্যাসিক স্টাইল : ছেলেদের চুলের এই কাট যে কোনো সময়ের জন্যই মানানসই। এটি সাধারণত মুখের গড়ন বুঝে করতে হয়। এ কাটের বিশেষত্ব হলো চুল একপাশে সিঁথি করে আঁচড়াতে হবে। অফিসে কিংবা অফিসের বাইরে এ হেয়ারকাদের কদর আছে। বেশ পুরনো হলেও এটি যে কোনো বয়সী ছেলেদের জন্যই মানানসই।

বাজ কাট : খেলোয়াড় ও সৈনিকরাই চুলের এ স্টাইলটি বেশি করে থাকে। এই কাটে চুল ট্রিমার মেশিনে কাটা হয়। এ কাটের একটি বিশেষ সুবিধা হলো গোসল করে চুল না আঁচড়ালেও চলে। কারণ এ কাটে চুলের দৈর্ঘ্য থাকে ১ ইঞ্চির ৪ ভাগের ১ ভাগ। যারা খেলাধুলা খুব পছন্দ করেন তাদের মধ্যে এ স্টাইল  বেশি জনপ্রিয়।

ক্রু স্টাইল : ক্রু স্টাইলের বিশেষত্ব হলো মাথার পেছনের ও পাশের চুল খুব ছোট করে রাখা। তবে ওপরের চুলগুলো ধাপে ধাপে কিছুটা বড় ও খাড়া করে রাখা হয়। ক্রু-কাট পরিচর্যা করা খুব সহজ। সাধারণত ক্রু-কাট দু’রকম হয়ে থাকে। এক্সট্রা শর্ট এবং হাই অ্যান্ড টাইট। মাথার একপাশে সিঁথি করে চুল আঁচড়ানো হয় বলে এ কাটে বেশ আকর্ষণীয় দেখায়।

বোর স্টাইল : স্বাস্থ্যবান ছেলেদের স্টাইল এটি। ক্যাজুয়াল ও ফরমাল যে কোনো লুকেই বেশ মানানসই। স্টাইলটির বিশেষত্ব হলো-চুল ক্লিপার করে ছাঁটতে হয়। এ ক্ষেত্রে চুলের দৈর্ঘ্য হবে ১ ইঞ্চির ৮ ভাগের ১ ভাগ। এ স্টাইলে পুরো মাথার চুল সমান থাকবে, যা দেখতে অনেকটা কদম ফুলের মতো। সাধারণত যাদের মাথা একটু বড় তাদের জন্য এটি উপযুক্ত।তবে, আপনার হেয়ার স্টাইল এমন হওয়া চাই, যেনো একইসঙ্গে সৌন্দর্য ও ব্যক্তিত্ব ফুটে ওঠে।সবমিলিয়ে, নিজেকে সবার থেকে যতটা সম্ভব আলাদা বোঝানোর মতো হেয়ারকাটই দরকার।

আরকে/এসজেড

 

 

 

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়