• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

এই সপ্তাহ আপনার কেমন যাবে

লাইফস্টাইল ডেস্ক
|  ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:১৩ | আপডেট : ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:৫১
মেষ(২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)

স্বাভাবিক জীবনযাপন। দিনের বেলা লুকিয়ে লুকিয়ে মেয়ে দেখা আর রাতে তাদের কথা ভাবা। ফেসবুকে কোনও মেয়ে নামের আইডি দেখলেই ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো। অ্যাকসেপ্ট না করলে মেসেজ পাঠানো। মেসেজ অপশন ব্লক করে দিলে ফলো করা। এভাবেই সপ্তাহটা যাবে। এত চেষ্টা শেষে একমাত্র ইতিবাচক দিক হলো মেয়ে নামধারী একটি আইডি থেকে এক ছেলে আপনার সঙ্গে চ্যাট করবে। আপনি বিষয়টা জানতে পারবেন পরের সপ্তাহে।

বৃষ(২১ এপ্রিল-২১ মে)

স্বপ্নবাজ বৃষ রাশির জাতক-জাতিকারা সবসময় স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসে। ঘুমিয়ে তো দেখেই, জেগে থেকেও দেখে। শুয়ে, বসে ও দাঁড়িয়ে সবসময় যেন কল্পলোকে থাকে। বাস্তবে যে দূরে, কল্পনায় তাকে কাছে অনুভব করে। তার কথা ভেবে পাশে থাকা কোনও একজনের গায়ে হাত দেয়। কখনও কখনও মেয়েদের পরিবর্তে মা’দের গায়েও হাত দিয়ে বসে। এই অবস্থা চলতে থাকবে এই সপ্তাহেও।

মিথুন(২২ মে-২১ জুন)

সপ্তাহটি খুবই বাজে যাবে মিথুন রাশির খেলোয়াড়দের। নেইমার হোক, মেসি হোক আর রোনালদো হোক এই সপ্তাহে কেউই গোল করতে পারবে না। এমনকি ফাঁকা গোল পেয়েও। অন্যদিকে এই সপ্তাহে রান পাবে না মিথুন রাশির ব্যাটসম্যানরা আর উইকেট পাবে না বোলাররা। তবে এই সপ্তাহে কোনও খেলোয়াড় দল থেকে বহিষ্কৃত হবে না।

কর্কট(২২ জুন-২২ জুলাই)

এতদিন সফলতার আশেপাশে ঘুরঘুর করেছেন। প্রাচীর ডিঙিয়ে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করেছেন কিন্তু পারেননি। কখনও কখনও দরজা ভাঙার চেষ্টাও করেছেন, তাও পারেননি। তবে এইবার মানে এই সপ্তাহে সফলতার উঠোন পেরিয়ে একেবারে দ্বারপ্রান্তে পৌঁছিয়ে যাবেন। আফসোসের কথা তবু ঘরের ভেতরে ঢুকতে পারবেন না।

সিংহ(২৩ জুলাই-২৩ আগস্ট)

পথে-রথে-মাঠে-ঘাটে ডনগিরি করতে কতো মানুষকেই তো দেখা যায় না কিন্তু এবার দেখা যাবে সিংহগিরি। সিংহগিরি দেখাবে কে তা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন। হুমম, সিংহ রাশির জাতকরাই দেখাবে সিংহগিরি। ভাবছেন জাতিকারা কী করবে। কী আর সিংহীগিরি। অন্যান্য রাশিধারীদের বলছি, এই সপ্তাহে কারও সঙ্গে তর্কে যাওয়ার আগে পারলে জানার চেষ্টা করবেন তারা সিংহ রাশির কিনা।

কন্যা(২৪ আগস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর)

কন্যা রাশিধারী হওয়া সত্ত্বেও কারও কারও মেয়েদের ব্যাপারে অ্যালার্জি আছে। মেয়েদের দেখলেই ভয় পায় আর মেয়েরা কথা বলতে এলে তো অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা হয়। গায়ে হাত দিলে সোজা কোমায়। পল্টিবাজদের মতো এই সপ্তাহে এই মানুষগুলো পাল্টে ফেলবে তাদের আচরণ। এদের অনেককেই দেখা যাবে প্রকাশ্যেই ডেট করতে।

তুলা(২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর)

সপ্তাহটি সবচেয়ে কষ্টের তুলা রাশির মেয়েদের যারা ভালোবাসে তাদের জন্য। জানি না এই কষ্ট তাদের কতদিন বয়ে দিন বয়ে বেড়াতে হয়! এখন আসি মূল কথায়। আসলে এই সপ্তাহে প্রায় সব তুলা রাশির বিবাহযোগ্য মেয়েদের বিয়ে হয়ে যাবে। তাও আবার অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ। সুতরাং তুলা রাশির জাতিকাদের প্রেমিকরা যদি অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ ম্যানেজ করতে না পারেন বুঝতেই পারছেন কী হতে চলেছে?

বৃশ্চিক(২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর)

সবদিক দেখেই বলছি এই সপ্তাহ বৃশ্চিকদের জন্য সবচেয়ে আনন্দের। কারণ তারা পানি চেয়ে শরবত, ভাত চেয়ে বিরিয়ানি, সাইকেল চেয়ে মোটরসাইকেল, স্যান্ডেল চেয়ে সু, প্রেম করতে চেয়ে বিয়ের অফার এবং চুমো চেয়ে আলিঙ্গন পাবেন। আমার তো মনে এই সপ্তাহের পর বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকাদের আর বেঁচে না থাকলেও চলবে। কারণ এতো ভালো তারা আর কখনোই থাকতে পারবেন না জীবনে।

ধনু (২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর)

ধনু রাশির মনুদের তনু যেন ইন্দ্রধনু। তাদের দেখলেই যে কারও ভালো লেগে যায়। দ্বিতীয় দেখাতেই ডেটিং করতে চায়। আজব ব্যাপার হলো ধনু রাশিধারীদের প্রতি বিপরীত লিঙ্গের মানুষের কোনও আগ্রহ নেই, যত চাপাচাপি সব সমলিঙ্গের মানুষের। তবে এই সপ্তাহে তাদের যাত্রা অশুভ হলেও মহাযাত্রা শুভ।

মকর(২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি)

মকর রাশিধারীদের বকর বকর কেউ খুব একটা আমলে নেয় না। তাদের কোনও কিছুকেই কেউ গুরুত্ব দেয় না। বাবা-মা, ভাইবোন, বন্ধু-বান্ধবী থেকে শুরু করে মনের মানুষও তাদের মুখের কথা-মনের কথা কোনোটারই গুরুত্ব দেয় না। সবাই নিজেদের সিদ্ধান্ত তাদের ওপর চাপিয়ে দেয়। তবে এই সপ্তাহে মকর রাশিধারীরা সিংহের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবে।

কুম্ভ (২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

এই সপ্তাহে জীবনের বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে কুম্ভরা। অনেক ভেবেচিন্তে পরিকল্পনা করবে। মজার ব্যাপার হলো সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য সঠিক সময় নির্ধারণ করতে পারবে না। তাই অন্তত এই সপ্তাহে কিছুই করা হবে না। শেষমেশ ধর্মের আশ্রয় নিতে বাধ্য হবে। বেশি বেশি ধর্মীয় রীতিনীতি অনুসরণ করবে। বিষয়টা ইতিবাচক নাকি নেতিবাচক তার জন্য আগামী সপ্তাহ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

মিনমিনে মীন রাশির জাতক-জাতিকারা দিন দিন বাকপটু হয়ে উঠেছেন। আর এটি এখন অনেকের দৃষ্টিকটু ও শ্রুতিকটু হয়ে গেছে। আগে যারা খুব পছন্দ করতেন, তার এখন বিরক্তির ভাব দেখায়। চেনা অনেকেই অচেনা হয়ে যাচ্ছে। তবে আর যাই হোক মনের মানুষ এখনও সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে এবং এই সপ্তাহেও দেবে।

আরও পড়ুন  :

কে/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়