• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫

প্রশ্নোত্তরে জেনে নিন ড্রাইভিং লাইসেন্স পরীক্ষার খুঁটিনাটি (পর্ব ১০)

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক
|  ২০ আগস্ট ২০১৮, ১২:৪৫ | আপডেট : ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৪:১০
ড্রাইভিং লাইসেন্স করানোর জন্য বিআরটিএ’র নিয়ম মেনে আবেদন করলেন। আবেদনের পরই পাবেন শিক্ষানবিস ড্রাইভিং লাইসেন্স। এটি পাওয়ার পর অংশ নিতে হয় দুই-তিন মাসের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে। প্রশিক্ষণ শেষ করার পর প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে সকল লাইসেন্স প্রত্যাশীদেরকেই নির্ধারিত তারিখ ও সময়ে নির্ধারিত কেন্দ্রে লিখিত, মৌখিক ও ফিল্ড টেস্টে অংশগ্রহণ করতে হয়।

ড্রাইভিং লাইসেন্সের লিখিত পরীক্ষার প্রশ্ন ও উত্তর নিয়ে আরটিভি অনলাইনের ধারাবাহিক আয়োজনের দশম পর্ব আজ।

প্রশ্ন: গাড়িতে কী কী লাইট থাকে?

উত্তর: ক. হেডলাইট, খ. পার্কলাইট, গ. ব্রেক লাইট, ঘ. রিভার্স লাইট ঙ. ইন্ডিকেটর লাইট, চ. ফগলাইট ছ. নাম্বারপ্লেট লাইট।

-----------------------------------------------------
আরও পড়ুন : গরুর দেহের কোন অংশের মাংস দিয়ে কী রান্না করবেন?
-----------------------------------------------------

প্রশ্ন: পাহাড়ি ও ঢাল বা চূড়ায় রাস্তায় গাড়ি কোন গিয়ারে চালাতে হয়?

উত্তর: ফার্স্ট গিয়ারে। কারণ ফার্স্ট গিয়ারে গাড়ি চালানোর জন্য ইঞ্জিনের শক্তি বেশি প্রয়োজন হয়।

প্রশ্ন: গাড়ির সামনে ও পিছনে লাল রঙের ইংরেজি ‘খ’ অক্ষরটি বড় আকারে লেখা থাকলে এর দ্বারা কী বোঝায়?

উত্তর: এটি একটি শিক্ষানবিশ ড্রাইভার চালিত গাড়ি। এই গাড়ি হতে সাবধান থাকতে হবে।

প্রশ্ন: শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স দিয়ে গাড়ি চালানো বৈধ কী?

উত্তর: ইন্সট্রাক্টরের উপস্থিতিতে ডুয়েল সিস্টেম (ডাবল স্টিয়ারিং ও ব্রেক) সম্বলিত গাড়ি নিয়ে সামনে ও পিছনে ‘খ’ লেখা প্রদর্শন করে নির্ধারিত এলাকায় চালানো বৈধ।

প্রশ্ন: ফোর হুইল ড্রাইভ গাড়ি বলতে কী বোঝায়?

উত্তর: সাধারণত ইঞ্জিন হতে গাড়ির পেছনের দু-চাকায় পাওয়ার (ক্ষমতা) সরবরাহ হয়ে থাকে। বিশেষ প্রয়োজনে যে গাড়ির চারটি চাকায় (সামনের ও পিছনের) পাওয়ার সরবরাহ করা হয়, তাকে ফোর হুইল ড্রাইভ গাড়ি বলে।

প্রশ্ন: ফোর হুইল ড্রাইভ কখন প্রয়োগ করতে হয়?

উত্তর: ভালো রাস্তায় চলার সময় শুধু পেছনের দু-চাকাতে ড্রাইভ দেয়া হয়। কিন্তু পিচ্ছিল, কর্দমাক্ত রাস্তায় চলার সময় চার চাকাতে ড্রাইভ দিতে হয়।

প্রশ্ন: টুলবক্স কী?

উত্তর: টুলবক্স হচ্ছে যন্ত্রপাতির বাক্স যা গাড়ির সঙ্গে রাখা হয়। মোটরযান জরুরি মেরামতের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও মালামাল টুলবক্সে রাখা হয়।

প্রশ্ন: ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যতীত গাড়ি চালালে বা চালানোর অনুমতি দিলে শাস্তি কী?

উত্তর: সর্বোচ্চ ৪ মাস কারাদণ্ড অথবা ৫০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা বা উভয়দণ্ড (মোটরযান অধ্যাদেশ, ১৯৮৩ এর ১৩৮ ধারা)। এই ক্ষেত্রে মালিক ও চালক উভয়েই দণ্ডিত হতে পারেন।

প্রশ্ন: গাড়িতে নিষিদ্ধ হর্ন কিংবা উচ্চশব্দ উৎপাদনকারী যন্ত্র সংযোজন ও তা ব্যবহার করলে শাস্তি কী?

উত্তর: ১০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা (মোটরযান অধ্যাদেশ, ১৯৮৩ এর ১৩৯ ধারা)।

প্রশ্ন: রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট, ফিটনেস সার্টিফিকেট ও রুট পারমিট ব্যতীত গাড়ি চালালে বা চালানোর অনুমতি দিলে শাস্তি কী?

উত্তর: প্রথমবার অপরাধের জন্য সর্বোচ্চ ৩ মাস কারাদণ্ড অথবা ২০০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা অথবা উভয়দণ্ড। দ্বিতীয়বার বা পরবর্তী সময়ের জন্য সর্বোচ্চ ৬ মাস কারাদণ্ড অথবা ৫০০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা অথবা উভয়দণ্ড (মোটরযান অধ্যাদেশ, ১৯৮৩ এর ১৫২ ধারা)। এই ক্ষেত্রে মালিক ও চালক উভয়েই দণ্ডিত হতে পারেন ।

আরও পড়ুন :

কেএইচ/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়