• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

গরমে ঘাম-ঘামাচিতে কী করবেন?

লাইফস্টাইল ডেস্ক
|  ২৭ মে ২০১৮, ১৬:২১
গরমে সবাই অতিষ্ঠ। এই সময়ে নানা ধরনের রোগবালাই দেখা যাওয়ার পাশাপাশি বেশকিছু শারীরিক সমস্যার মুখোমুখি হন সবাই। সেইসব বালাইয়ের একটি হলো ঘামাচি। ঘামাচি না সহ্য করা যায়, না আছে এটি তাৎক্ষণিকভাবে তাড়ানোর উপায়। তীব্র গরমে ঘাম থেকে মানুষের ঘামাচি হয়। চলুন জেনে নিই কীভাবে ঘামাচির দফা রফা করা যায়।

১. ঘামাচির সুনির্দিষ্ট কোনো ওষুধ নেই। পাউডার ব্যবহার করলে প্রাথমিকভাবে উপশম হয়। তবে পরদিন যেখানে পাউডার লাগিয়েছেন সে জায়গাটি পানি দিয়ে ধুয়ে দিন।

২. ঘামাচি প্রতিরোধে বরফ ভালো কাজ করে। বরফ একটি কাপড়ে পেঁচিয়ে ঘামাচির স্থানে ৫ থেকে ১০ মিনিট সেঁক দিন। এটি ঘামাচি মেরে ফেলে লাল হওয়া কমিয়ে দিয়ে থাকে।

৩. বেসন ও পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি ঘামাচির স্থানে লাগিয়ে নিন। ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি চুলকানি দূর করে ঘামাচি দূর করে দেবে।

৪. নানা ভেষজ গুণে সমৃদ্ধ মুলতানি মাটির সঙ্গে দুই অথবা তিন টেবিল চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি ঘামাচির স্থানে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৫. এক মুঠো নিমপাতা গুঁড়ো করে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই পেস্টটি ঘামাচির স্থানে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৬. ছোলাবুট থেকে বানানো ময়দাকে পানি দিয়ে গুলিয়ে যেখানে ঘামাচি হয়েছে সেখানে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

৭. আলু গোল ও চিকন করে কেটে যে জায়গায় ঘামাচি হয়েছে সেখানে ১০ থেকে ১৫ মিনিট রেখে দিন। আলুর যে প্রাকৃতিক নির্যাস আছে সেটা ঘামাচি দূর করতে সহায়তা করবে।

৮. তরমুজ থেকে বিচিগুলো সরিয়ে তরমুজ বেটে নিন। তারপর তরমুজের বাটা অংশ ঘামাচি আক্রান্ত জায়গায় লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন। তারপর ধুয়ে ফেলুন।

৯. আদা কুঁচি কুঁচি করে কেটে পানিতে দিয়ে ফুটিয়ে নিন। তারপর ফুটানো পানি ঠাণ্ডা হয়ে এলে নরম একটি কাপড় দিয়ে ত্বকে আস্তে আস্তে লাগিয়ে নিন। ঘামাচি তাড়াতে বেশ কার্যকর হবে।

১০. পাকা পেঁপের বিচি সরিয়ে বেটে নিন। তারপর বাটা পেঁপে ঘামাচি আক্রান্ত জায়গায় ২০ থেকে ২৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

কেএইচ/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়