ট্যালকম পাউডার থেকে হতে পারে ক্যানসার!

প্রকাশ | ১৩ এপ্রিল ২০১৮, ১৬:১০ | আপডেট: ১৩ এপ্রিল ২০১৮, ১৬:৪৫

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক

আপনার আদরের শিশুটির ত্বককে কোমল আর নরম রাখার জন্য চোখ বন্ধ করেই এতোদিন ব্যবহার করতেন বাজারে প্রচলিত ট্যালকম পাউডারগুলো। শুধু শিশুরা নয় নারী পুরুষ নির্বিশেষে সব বয়সের মানুষই ত্বকের মোলায়েম ভাব বজায় রাখার জন্য ব্যবহার করে থাকেন পাউডার। এবার বোধহয় সে দিনটি ফুরালো। শতশত বছর ধরে চলে আসা ট্যালকম পাউডার থেকে হতে পারে ভয়াবহ ওভারিয়ান ক্যানসার। খবর সিএনএনএর।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : ৩ বছরে ১০ লাখ শ্রমিক নেবে কানাডা
--------------------------------------------------------

অতি সম্প্রতি ৪ হাজার ৮০০ জনের মতো নারী ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট জনসন এন্ড জনসনের নামে এ অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে। তাদের অভিযোগ জনসন এন্ড জনসন ব্র্যান্ডের বেবি পাউডার নিয়মিত ব্যবহার করার কারণে তাদের শরীরে ক্যানসারসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যগত সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

জনসন এন্ড জনসনের বিরুদ্ধে এ অভিযোগের কিছুটা হলেও সত্যতা পাওয়া যায় অ্যাসিউরড শাওয়ার এন্ড বাথ অ্যাবজরবেন্ট বডি পাউডার নামক একটি পণ্যের নির্মাতাদের কাছ থেকেও। তারা বলছে, পাউডারটি শুধু শরীরের বাইরে ব্যবহার করার জন্য। নারীদের যৌনাঙ্গের কাছাকাছি জায়গায় এটি ব্যবহার করলে এর মাধ্যমে ওভারিয়ান ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা হতে পারে।

যদিও অভিযোগটি নিয়ে আমেরিকায় চিকিৎসক ও আইনজীবীদের মধ্যে দ্বিধাবিভক্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। অভিযোগ করা হয়েছে যাদের বিরুদ্ধে সেই জনসন এন্ড জনসন কর্তৃপক্ষ অবশ্য পুরো অভিযোগটি উড়িয়ে দিয়েছে। তারা বলছে, তাদের পাউডারের সাথে ওভারিয়ান ক্যানসারের কোনও সম্পর্ক নেই। একদল বিজ্ঞানী তাদের পক্ষে আদালতে স্বাক্ষ্যও দিয়েছে। আরেকপক্ষ অভিযোগকারী নারীদের পক্ষে। নারীদের পক্ষের আইনজীবীরা বলছেন, জনসন এন্ড জনসন এতোদিন এ সমস্যাটির কথা জেনেও চুপ ছিল।

তবে নিরপেক্ষ একদল বিজ্ঞানী বলছেন, এ বিষয়ে এখনি মন্তব্য করার অবকাশ নেই। আরও গবেষণার প্রয়োজন আছে।

জনসন এন্ড জনসনের প্রধান আইনজীবী বার্ট উইলিয়াম অবশ্য বলছেন, যারা অভিযোগ করেছে তারা টাকা খসানোর জন্য এ মামলাটি করেছে।

শুধু জনসন এন্ড জনসনই নয় অভিযোগকারী নারীরা আরও কয়েকটি কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। তার মধ্যে অন্তর্ভূক্ত আছে ভ্যালিয়্যান্ট ফার্মাসিউটিক্যালস, চ্যাটাম ইনকরপোরেশন এবং ইমেরিস ট্যাল্ক আমেরিকা।

আরও পড়ুন : 

কেএইচ/এমকে