• ঢাকা সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫

বদলে ফেলুন চেহারা

রেহনুমা তারান্নুম খান
|  ০১ অক্টোবর ২০১৭, ১২:৫৫ | আপডেট : ০১ অক্টোবর ২০১৭, ১৩:৪৫
প্রফেশনাল মেকআপ আর্টিস্টদের বাইরে খুব কম নারী কনট্যুরিং সম্পর্কে ধারণা রাখেন। এই অজ্ঞতার কারণে ঘরে বসে পারফেক্ট মেকআপ করা যায় না। এমনকি বিভিন্ন উপলক্ষগুলোতে পার্লারে গিয়ে মেকআপ করতে হয়। আজ জেনে নেয়া যাক কনট্যুরিং এর খুঁটিনাটি।

ধরুন, আপনার চেহারা অনেক ভারি, নাক অনেক বোঁচা কিংবা ঠোঁট অনেক মোটা। ফলে মন ভরে মেকআপ করার পরও মনটা খারাপ হয়ে যায়। ভাবছেন এক্ষেত্রে কি করণীয়? কিংবা কোন ভুলের কারণে আপনি পার্লারের মত তীক্ষ্ণ ফিনিশিং পাচ্ছেন না? তবে জেনে নিন এটা কনট্যুরিংয়ের ভুল।

কনট্যুরিং এক বিশেষ পদ্ধতির নাম, যার সাহায্যে চেহারার আকৃতি বা ধরণ পরিবর্তন করা যায় এবং মেজর খুঁতগুলো ঢেকে দেয়া যায়। যা প্রফেশনাল মেকআপ আর্টের সর্বশেষ ও সর্বাধিক কার্যকর সংযোজন।

ভিটামিন বুস্টার, ভালো মানের প্রাইমারি ও ফাউন্ডেশন দিয়ে মেকআপের বেজ তৈরি করার পর কনসিলার দিয়ে চেহারার খুঁতগুলো ঢেকে নিন। বিশেষ করে চোখের নিচের অংশ ও দাগযুক্ত অংশগুলো।

এক্ষেত্রে ফাউন্ডেশন ও কনসিলার ব্লেন্ড করুন ভালো মানের স্পঞ্জ ব্লেন্ডার বা ব্লেন্ডিং ব্রাশ দিয়ে। এবার গালের চোয়ালের হাড়ের নিচের অংশ নির্ণয় করুন (আয়নার দিকে তাকিয়ে ফিস ফেইস করলে আপনার চোয়ালের নিচের ভাঙা অংশ ফুটে উঠবে)। এবার সে অংশে ডার্ক কালারের ব্রোঞ্জার বা যেকোন গাড় কনট্যুরিং শেড ব্যবহার করুন।

এখন বাজারে ক্রিম কনট্যুরিং কিটও পাওয়া যাচ্ছে। মানানসই ক্রিম কনট্যুরিং শেড ব্রাশে নিয়ে দুই চোয়ালের নিচে রেখা টানুন। এবার একটি ব্লেন্ডিং ব্রাশের সাহায্যে তা ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন।

এতে করে আপনার চেহারা শার্প দেখাবে। একইভাবে থুঁতনির দুপাশের হাড় থেকে কান পর্যন্ত একই শেডের ডার্ক লাইন টানুন ও ব্লেন্ড করুন। এতে করে আপনার চেহারা বেশি চওড়া হলে তা শেপে চলে আসবে। এবার নাকের দু'পাশে একই শেডের লম্বা রেখা টানুন নাকের মাঝখানের সরু জায়গা হাইলাইটিংয়ের জন্য খালি রাখুন।

এবার, যাদের কপাল অনেক বড় তারা কপালের হাড়ের উপর থেকে চুলের গোড়া পর্যন্ত একই শেড লাগান ও ব্লেন্ড করুন। ব্লেন্ডিং ছাড়া আপনার কনট্যুরিং প্রফেশনাল লুক পাবেনা। সবশেষে চোয়ালের ওপর ও নাকের খালি রাখা সরু অংশে ও ঠোঁটের উপরের কিউপিড বো-তে সোজাসুজি হাইলাইটার দিন।

যাদের চেহারা গোলগাল তারা গাঢ় রঙের ব্লাশ আর যাদের চেহারা হালকা-পাতলা তারা দিন লাইট শেডের ব্লাশ। এবার তুলির সাহায্যে লিপস্টিক দিন। ঠোঁটে সরাসরি লিপস্টিক দিলে ঠোঁট  মোটা দেখায়।

তাই মোটা ঠোঁটের অধিকারীরা লিপস্টিক ব্যবহারের পর অব্যবহৃত শ্যাডো ব্রাশের মাধ্যমে নিচের ঠোঁটের নিচ বরাবর ডার্ক ব্রাউন শেড লাগান ব্রাশকে ডানে-বামে অ্যাপ্লাই করে।এতে নিচের ঠোঁট কম মোটা দেখাবে।

এবার কনট্যুরিং যাতে পরিষ্কার ভাবে ফুটে না থাকে এজন্য বড় পাউডার ব্রাশে প্রেস পাউডার বা সেটিং পাউডার বুলিয়ে নিন ও ভালো ব্র্যান্ডের মেকআপ সেটিং স্প্রে ব্যবহার করুন। কনট্যুরিং ছাড়া মেকআপ ও কনট্যুরিংয়ের পরের মেকআপের পার্থক্য এবার নিজেই দেখুন।

আরকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়