• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

শীতে নিন শিশুর বাড়তি যত্ন

লাইফস্টাইল ডেস্ক
|  ২১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১২:৪২ | আপডেট : ২১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৩:০১
চলে এলো শীতের মৌসুম। কিন্তু বাইরে কখনো ঠাণ্ডা, কখনো গরম। প্রকৃতির এই পালাবদলের একটি বিরাট প্রভাব পড়ছে আমাদের শরীরের ওপর। ঠাণ্ডা গরমের এই মিশ্রণে বড়রা মানিয়ে নিতে পারলেও বেশি সমস্যা দেখা দেয় শিশুদের। খুব অল্পতেই অসুস্থ হয়ে পড়ছে তারা।        

শীতের মৌসুমে বেশিরভাগ মায়েরা দ্বিধায় পরেন শিশুদের গোসল করানো এবং তাদের ত্বকের যত্ন নিয়ে। শীতে শিশুদের গোসল করালে ঠাণ্ডা লেগে যাবে এমন ভুল ধারণা আছে অনেকেরই। শীতকালে আমাদের মতো শিশুদের ত্বকও শুষ্ক হয়ে যায়। তাই নিয়মিত গোসল না করালে শিশুদের ত্বকে যেমন সমস্যা হতে পারে, তেমনই প্রতিদিনের ঘাম, ময়লা জমে ঠাণ্ডা লেগে যেতে পারে। তাই শিশুকে সুস্থ রাখতে প্রয়োজন প্রতিদিন গোসল করানো। তাই জেনে নিন এই শীতে শিশুদের বাড়তি যত্ন নিবেন কীভাবে -

গোসল করানোর পদ্ধতি: 

চিকিৎসকদের মতে, ১ মাস (০ থেকে ৩০ দিন) বয়স পর্যন্ত শিশুদের সপ্তাহে ২ দিন গোসল করানো উচিৎ। ১ মাস পর থেকে নিয়মিত গোসল করানো যাবে। কিন্তু যে সকল শিশুরা ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা নিয়ে জন্মায় তাদের ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া গোসল করানো উচিৎ না। প্রতিদিন একেই সময়ে শিশুদের গোসল করাবেন। শীতের সময় সকালে রোদ থাকা অবস্থায় তাদের গোসল সেরে ফেলবেন। আপনার শিশুকে কখনই ঠাণ্ডা বা অতিরিক্ত গরম পানিতে গোসল করাবেন না। ত্বকে সহনীয় এমন হালকা গরম  পানিতে শিশুকে গোসল করান। বাইরের বাতাস যাতে ঘরে না ঢুকে, তাই গোসলের সময় দরজা-জানালা বন্ধ করে রাখুন।

শিশুকে গ্লিসারিনযুক্ত সাবান দিয়ে গোসল করানো ভালো। হালকা গরম পানিতে কাপড় ভিজিয়ে প্রথমে তাদের কান, নাক, বগল পরিষ্কার করে নিন। একদিন পর পর শ্যাম্পু করুন। শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ধুইয়ে মুছে নিন। এরপর তার শরীর ধুয়ে দিন।

ত্বকের যত্ন:

গোসল করানোর সময় শুকনা কাপড় এবং নরম তোয়ালে হাতের কাছে রাখুন। গোসল করানো শেষ হলে সাথে সাথে শিশুর শরীর মুছে ফেলুন। সারা শরীরে লোশন এবং মুখে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে ফেলুন। শিশুকে আরামদায়ক কাপড় পরিয়ে কান টুপি, হাত মুজা এবং পা মুজা পরিয়ে ফেলুন।

উল্লেখ্য, আপনার শিশুকে ভেজা ডায়াপার বেশিক্ষণ পরিয়ে রাখবেন না। প্রতিবার ডায়াপার ভিজিয়ে ফেলার পর তা সাথে সাথে পাল্টে ফেলুন।  

এন/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়