• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

দানবে পরিণত হচ্ছে হারিকেন ফ্লোরেন্স

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:৪৬ | আপডেট : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:৫০

মার্কিন আবহাওয়াবিদরা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, হারিকেন ফ্লোরেন্স আরও শক্তিশালী হচ্ছে। তাই আগামী ৪৮ ঘণ্টায় প্রাণনাশী প্লাবনের আশঙ্কা করছেন তারা। খবর বিবিসির।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হচ্ছে, ক্যাটাগরি চারের হারিকেন ফ্লোরেন্স ঘণ্টায় ২২৫ কিলোমিটার গতিতে আঘাত হানতে পারে।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার উত্তর ক্যারোলাইনার উইলমিংটনের কাছে হারিকেনটি আঘাত হানতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এরইমধ্যে ভার্জিনিয়া, মেরিল্যান্ড, ওয়াশিংটন ডিসি, উত্তর এবং দক্ষিণ ক্যারোলাইনায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে উত্তর ক্যারোলাইনার গভর্নর রয় কুপার বলেন, এই ঘূর্ণিঝড় একটি দানব। এটা খুবই বড়, ভয়াবহ, প্রাণনাশী ও ঐতিহাসিক হারিকেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টারের সবশেষ আপডেট অনুযায়ী, হারিকেন ফ্লোরেন্স উত্তর ক্যারোলাইনার কেপ ফিয়ারের এক হাজার ৭৮ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থান করছিল। তারা জানাচ্ছে, মঙ্গলবার রাত এবং বুধবারে এই হারিকেনটি আরও শক্তিশালী হবে।

সতর্কবার্তায় বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার দিনের শেষদিকে এটি দুর্বল হয়ে পড়বে বলে তারা ধারণা করা হচ্ছে।

হারিকেন ফ্লোরেন্সের গতিপথ

জাতীয় আবহাওয়া সার্ভিস জানিয়েছে, হারিকেন ফ্লোরেন্সের প্রভাবে উপকূলে ১৩ ফুট (চার মিটার) পর্যন্ত ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে। এছাড়া কিছু এলাকায় ২৫ ইঞ্চি (৬৪ সেন্টিমিটার) পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হতে পারে।

দক্ষিণ ক্যারোলাইনার ডব্লিউসিবিডি-টিভির প্রধান আবহাওয়াবিদ রব ফাওলার বলেছেন, ফ্লোরেন্স আরও বড় হচ্ছে এবং ১০০ মাইল দূরে এর প্রভাব অনুভূত হবে।

১৯৮৯ সালে হারিকেন হুগোর পর উত্তর ও দক্ষিণ ক্যারোলাইনায় এটিই সবচেয়ে বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড়। ওই হারিকেনের আঘাতে ৪৯ জন নিহত এবং ৭০০ কোটি ডলারের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল।

হারিকেন ফ্লোরেন্সের আঘাতে উত্তর ক্যারোলাইনার সাউথপোর্টে ব্রুনসউইক পরমাণুচুল্লি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এছাড়া এই ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ভার্জিনিয়া, উত্তর ও দক্ষিণ ক্যারোলাইনায় ১০ লাখের বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উত্তর ও দক্ষিণ ক্যারোলাইনার জন্য জরুরি ঘোষণাপত্রে সই করেছেন। মঙ্গলবার ওভাল অফিসে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, হারিকেন ফ্লোরেন্সের মোকাবেলায় সরকার কোনও ‘কার্পণ্য’ করবে না। এই ঘূর্ণিঝড় ‘খুব বড় ও খুবই বর্ষণমুখর’।

হারিকেন ফ্লোরেন্সের আগাম প্রস্তুতি নিচ্ছেন দক্ষিণ ক্যারোলাইনার মানুষজন

অন্যদিকে ভয়াবহ এই ঘূর্ণিঝড়কে সামনে রেখে দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় এইসব অঙ্গরাজ্যের মানুষজনকে পানি, জেনারেটর ও গ্যাসসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম লাইন দিয়ে কিনতে দেখা গেছে। কিছু সুপারশপ সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট দিয়ে জানিয়েছে, তাদের দোকানে পানি শেষ হয়ে গেছে।

তবে হারিকেন ফ্লোরেন্স ছাড়াও আটলান্টিক মহাসাগরের আরও কয়েকটি ছোট ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হচ্ছে। হারিকেন আইজাক, হারিকেন হেলেন এবং ক্রান্তীয় ঝড় অলিভিয়া’র ব্যাপারেও পূর্বাভাস দিয়েছে মার্কিন আবহাওয়া অফিস।

এ/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়