পেছালো মিয়ানমারে কারাবন্দী দুই রয়টার্স সাংবাদিকের রায়

প্রকাশ | ২৭ আগস্ট ২০১৮, ১১:৩২ | আপডেট: ২৭ আগস্ট ২০১৮, ১১:৪০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন

ওয়া লোন ও কিয়াও সোয়ে। মিয়ানমারের রাখাইন স্টেটে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা নিপীড়ন ও গণহত্যার তথ্য উপাত্ত সংগ্রহের সময় মিয়ানমারে আটক করা হয় এই দুই রয়টার্স সাংবাদিককে। ইয়াঙ্গুনের একটি আদালতে আজ ২৭ আগস্ট সোমবার ওই দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের রায় ঘোষণা কথা ছিল। তবে শেষ সময়ে তা স্থগিত ঘোষণা করে নতুন তারিখ নির্ধারণ করেছেন দেশটির আদালত। ২৭ আগস্টের পরিবর্তে আগামী ৩ সেপ্টেম্বর রায় ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে। খবর রয়টার্স।  

রয়টার্সের এই দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছে। এই অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের ১৪ বছরের জেল হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

অন্যদিকে তাদের আইনজীবী বলছেন, বিচার বিভাগ স্বাধীন হলে ও ন্যায়বিচার হলে তারা মুক্তি পাবেন।

গত ১২ ডিসেম্বর দুই পুলিশের সঙ্গে সাক্ষাৎ ও তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে তাদের আটক করা হয়। তখন থেকেই তারা কারাবন্দী হয়ে রয়েছেন। রয়টার্সের পক্ষ থেকে তখন বলা হয়েছিল, তাদের দুই প্রতিবেদককে নৈশ ভোজের জন্য নিমন্ত্রণ করে ডেকে এনে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

এদিকে রায় ঘোষণার কথা থাকায় বিপুল সংখ্যক সাংবাদিক ও বিদেশি কূটনীতিক সোমবার ইয়াংগনের আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত হয়েছিলেন। তবে মামলা বিচারের দায়িত্বে থাকা বিচারক ইয়ে লইনের বদলে কিন মং মং নামের আরেকজন বিচারক এসে রায়ের তারিখে এক সপ্তাহ পিছিয়ে দেয়ার কথা জানান।   

এর আগে বাংলাদেশ জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশ ও মানবাধিকার সংগঠন দুই সাংবাদিককে গ্রেপ্তারের নিন্দা জানিয়ে তাদের মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানালেও মিয়ানমার সরকার তাতে সাড়া দেয়নি। 

আসামিপক্ষের আইনজীবী গত ২ জুলাই এ মামলা বাতিলের আবেদন জানিয়ে বলেছিলেন, রাষ্ট্রপক্ষ অভিযোগের পক্ষে যথেষ্ট প্রমাণ দেখাতে পারেনি। সংবাদ সংগ্রহে বাধা দিতেই ঘটনা সাজিয়ে দুই সাংবাদিককে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

এপি/এসজে