আজানের উচ্চস্বর নিয়ে আপত্তি, চীনা নারীকে দেড় বছরের জেল

প্রকাশ | ২৬ আগস্ট ২০১৮, ১৫:৪৩ | আপডেট: ২৬ আগস্ট ২০১৮, ১৫:৫৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন

চীনা বংশোদ্ভূত খ্রিস্টান নারী মেইলিয়ানা আজানের উচ্চস্বর নিয়ে আপত্তি জানানোর কারণে তাকে ১৮ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রার একটি আদালত। এই ইস্যুতে ২০১৬ সালের মেইলিয়ানার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হলেও ওই মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে ২১ আগস্ট মঙ্গলবার। খবর ইন্ডিপেনডেন্ট।

দেশটির আদালতের এমন রায়ের সমালোচনা করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। সংগঠনটি আদালতের এ রায়কে হাস্যকর আখ্যা দিয়েছে। সংগঠনটির উদ্যোগে ইন্টারনেটে একটি আবেদনপত্র প্রকাশিত হয়েছে অভিযুক্ত নারীর মুক্তির দাবিতে। সেখানে গত শুক্রবার পর্যন্ত প্রায় এক লাখ মানুষ স্বাক্ষর করেছেন।

-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : উত্তর কোরিয়া নিয়ে ট্রাম্পের বক্তব্য দায়িত্বজ্ঞানহীন: চীন
-------------------------------------------------------

এদিকে মাইকের আজানের উচ্চস্বর নিয়ে আপত্তি জানানো ধর্ম অবমাননার আওতায় পড়ে না বলে মন্তব্য করেছেন ইন্দোনেশিয়ার ধর্মীয় সংগঠন নাহদাতুল উলামা। সংগঠনটির পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, আজানের উচ্চস্বর নিয়ে আপত্তিকে গঠনমূলক সমালোচনা হিসেবেই দেখা উচিত।

প্রায় চার কোটি সদস্যের সংগঠন নাহদাতুল উলামার আইন বিভাগের প্রধান রবিকিন এমহাস বলেছেন- ‘মাইকে দেয়া আজানের শব্দ অনেক বেশি, এমনটা বললে তাকে ধর্ম অবমাননা হিসেবে গণ্য করা যায় না। বরং ইন্দোনেশিয়ার মতো একটি মুসলিম সমাজে এমন অভিযোগকে মুসলমানদের গঠনমূলক সমালোচনা হিসেবেই দেখা উচিত।’

অভিযুক্ত নারীর আইনজীবী আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার কথা জানিয়ে বলেন, ২০১৬ সালে তার মক্কেল ব্যক্তিগত কথোপকথনে মসজিদে ব্যবহৃত মাইকের উচ্চশব্দ নিয়ে আপত্তি জানিয়েছিলেন। কিন্তু তার বক্তব্যকে এমনভাবে বিকৃত করে উপস্থাপন করা হয়েছে যেন তিনি আজানেরই বিরুদ্ধাচরণ করেছেন।

আরও পড়ুন : 

এপি/পি