যেভাবে ভেঙে পড়ে ইতালির মহাসড়ক সেতুটি

প্রকাশ | ১৫ আগস্ট ২০১৮, ১২:০৪ | আপডেট: ১৫ আগস্ট ২০১৮, ১৩:১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইতালির জেনোয়া শহরের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কের ওপর একটি সেতু ধসে পড়ার পর অন্তত ২৬ জন নিহত হয়েছেন। সেতুটি ধসে পড়ার পর এটির ওপর থাকা কোনও কোনও গাড়ি প্রায় তিনশ ফুট নিচে গিয়ে পড়ে। খবর বিবিসি বাংলার।

ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, যেসব টাওয়ারের ওপর এই সেতুটি ছিল, ঝড়ো আবহাওয়ায় তার একটি ভেঙে পড়ছে। ইতালির পরিবহনমন্ত্রী এই ঘটনাকে এক ‘বিরাট ট্রাজেডি’ বলে বর্ণনা করেছেন।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সেখানে প্রচণ্ড ঝড়-বৃষ্টি শুরু হয়েছিল। একজন প্রত্যক্ষদর্শী পিয়েট্রো এম আলআসা জানান, তীব্র বজ্রপাত হচ্ছিল, তখন আমরা ব্রিজটি ধসে যেতে দেখি।

সেতুটির ওপর তখন গাড়ির দীর্ঘ লাইন ছিল। অনেক ট্রাক এবং কার সেতুটির ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে। সেতুর নিকটবর্তী অনেক ভবনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : ২০১৯ সালে বিজেপি সরকারকে হটিয়ে দেশ ‘স্বাধীন’ করবো: মমতা
-------------------------------------------------------

শত শত জরুরিকর্মী ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধারকাজ শুরু করেছে।

মোরান্দি নামের এই ব্রিজটি ১৯৬০-এর দশকে তৈরি করা হয়েছিল। ইতালির এ-টেন মহাসড়কের ওপর এটির অবস্থান। ইতালির রিভিয়েরা এবং ফ্রান্সের দক্ষিণ উপকূলকে যুক্ত করেছে এই মহাসড়ক।

ব্রিজটির যে অংশটি ধসে পড়েছে, সেটি ছিল পোলসেভেরা নদীর ওপর। যখন সেতুটি ধসে পড়ে, তখন এটির ভিত্তি মজবুত করার কাজ চলছিল। সেতুর কাঠামো নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছিল।

তবে কেন সেতুটি ধসে পড়লো তা নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা চলছে।

একজন স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ার ইয়ান ফার্থ বলেন, মোরান্দি সেতুর ডিজাইন ছিল খুব অভিনব। কেন এটি ধসে পড়লো তা বলা কঠিন। তবে যেহেতু রি-ইনফোর্সড কংক্রিটের ব্রিজটি ৫০ বছরের বেশি পুরনো তাই এমন হতে পারে যে, এর ভেতরের কিছু জিনিস ক্ষয়ে গিয়েছিল।

দুর্ঘটনাস্থল থেকে একজন ইতালিয়ান সাংবাদিক ম্যাত্তিও পুচারেল্লি জানান, তিনি সেখানে সেতুর নিচে প্রায় ২০ থেকে ৩০টি গাড়ি দেখতে পেয়েছেন। পুলিশ, অ্যাম্বুলেন্স, হেলিকপ্টার দিয়ে উদ্ধারকাজ চালানো হচ্ছে। উদ্ধারকর্মীরা নদীতেও অনেক মানুষকে খুঁজে পাচ্ছে।

এদিকে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ এই দুর্ঘটনায় শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন। অন্যদিকে ইতালির উপপ্রধানমন্ত্রী ম্যাত্তিও স্যালভিনি বলেছেন, এই সেতু দুর্ঘটনা প্রমাণ করে যে ইতালিকে তার ব্যয় সংকোচনের চেয়ে বরং অবকাঠামো খাতে ব্যয় বৃদ্ধিকেই বেশি গুরুত্ব দিতে হবে।
 

আরও পড়ুন :

এ/এসএস