• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

বাংলাদেশি বা রোহিঙ্গা যেতে না চাইলে সোজা গুলি: ভারতীয় সাংসদ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ৩১ জুলাই ২০১৮, ২০:৩৫ | আপডেট : ৩১ জুলাই ২০১৮, ২০:৫৮

বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা মুসলিমরা ভারতের জন্য বিপদজনক। যদি তারা স্বেচ্ছায় এই দেশ ছেড়ে যেতে না চায়, তবে তাদেরকে গুলি করে মেরে ফেলা উচিত বলে মন্তব্য করলেন বিজেপির আইনজীবী এবং তেলেঙ্গানার বিধানসভার সদস্য টি. রাজা সিংহ।

মঙ্গলবার দেশটির সংবাদ সংস্থা এএনআই’র সঙ্গে আসামের জাতীয় নাগরিক নিবন্ধন খসড়া তালিকা প্রসঙ্গে কথা বলার সময় এই মন্তব্য করেন তিনি।

---------------------------------------------------------------
আরও পড়ুন  : ঈদে বাসের অগ্রিম টিকিট ৫ আগস্ট থেকে
---------------------------------------------------------------

রাজা সিংহ বলেন, দেশের মধ্যে বিদেশিদের রাখা ঠিক হতে পারে কিভাবে? এসব কীটকে আমাদের দেশে রাখার কোনও মানে হয় না। অন্য দেশে বিপদজনক অনুপ্রবেশকারীদেরকে গুলি করে মেরে ফেলা হয়।

তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আমার অনুরোধ, রোহিঙ্গা হোক আর বাংলাদেশি হোক, ভালোই ভালোই ভারত ছাড়তে না চাইলে তাদের সবাইকে গুলি করে মেরে ফেলতে হবে আমাদের।

হায়দরাবাদের গোশামহলের এই রাজনীতিবিদ পিটিআইকে বলেন, ১৯৭১ সালে যুদ্ধের সময় বাংলাদেশকে সহযোগিতা করে ভারত। তখন বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি আসামে অনুপ্রবেশ করে। আসামে নাগরিকত্ব প্রমাণের নথি দেখাতে না পারা ৪০ লাখ মানুষ তারাই। অবৈধভাবে এখনও তারা বসবাস করছে।

এর আগে সোমবার আসামের এনআরসি’র খসড়া তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত তালিকা থেকে জানা গেছে, মোট তিন কোটি ২৯ লাখ ৯১ হাজার ৩৮৪ জন আবেদনকারীর মধ্যে আছে দুই কোটি ৮৯ লাখ ৮৩ হাজার ৬৭৭ জনের নাম। বাদ পড়েছে ৪০ লাখ সাত হাজার ৭০৭ জন।

তালিকা প্রকাশের পর বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, এই ঘটনা দুর্ভাগ্যজনক। বাঙালি তাড়াও অভিযান চলছে। ভোট রাজনীতি করতে গিয়ে বিভাজনে উস্কানি দিচ্ছে কেন্দ্র। এই ৪০ লাখ মানুষের ভবিষ্যৎ কী হবে?

তিনি আরও বলেন, এই বিপুল সংখ্যক মানুষের পুনর্বাসন নিয়ে কিছু ভেবেছে কেন্দ্র? নিজের দেশের মধ্যেই উদ্বাস্তু হয়ে পড়বে এই মানুষগুলো। যদি পুশব্যাক হয়, অর্থাৎ বাংলাদেশে ফিরিয়ে দেয়া হয়, এবং বাংলাদেশ যদি তাদের না নেয়, তাহলে তারা কোথায় যাবে?

কে/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়