ইহুদি রাষ্ট্র হিসেবে ইসরায়েলের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু

প্রকাশ | ১৯ জুলাই ২০১৮, ২১:৩৭ | আপডেট: ১৯ জুলাই ২০১৮, ২২:০৯

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক

ধাপে ধাপে এগিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল।২০ বছর আগেও অস্তিত্ব সংকটে ভুগেছে ইসরায়েল। যেকোনো সময় আরবদের কাছে হারাতে হতে পারে জোড় করে দখল করা জমি। তাতে ইসরায়েলের মানচিত্রে আসতে পারে পরিবর্তন। আর ইরানতো প্রকাশ্যে কিছু দিন পরপর মানচিত্র মুছে ফেলার হুমকি দিচ্ছেই।

তবে সৌদি আরব সহ আরব বিশ্বের প্রভাবশালী দেশগুলোর সাম্প্রতিক অনেকটাই প্রকাশ্য সমর্থন ও যুক্তরাষ্ট্রের সরাসরি হস্তক্ষেপের কারণে এখন আর ইসরায়েল অস্তিত্ব সংকটে ভুগছে না বলেই মনে হয়। আর তার প্রমাণ দিলো বুধবার ইসরায়েলকে ইহুদি রাষ্ট্র ঘোষণা করে পার্লামেন্টে বিল পাস করে।একইসাথে হিব্রুকে রাষ্ট্রভাষার স্বীকৃতি দিয়েছে ইসরাইলি পার্লামেন্ট(নেসেট)। এই বিল পাশের ফলে বিশ্বের সকল ইহুদি এখন ইসরায়েলে বিনা বাধায় বসতি স্থাপন করতে পারবেন।

বিলটি পাস হওয়ার সময় আরব এমপিরা পার্লামেন্টে এর বিরোধিতা করেন। এমনকি যুক্তরাষ্ট্রের ইহুদি সংগঠনও বিলটির বিরোধিতা করেছে।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন  : এই মাসেই হবে শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ
--------------------------------------------------------

পার্লামেন্টে বিতর্কিত বিলটির পক্ষে ভোট দেন ৬২ জন সদস্য, বিপক্ষে ছিলেন ৫৫ জন। আর ভোটদানে বিরত থাকেন দুই এমপি। ইসরাইলি প্রেসিডেন্ট এবং অ্যাটর্নি জেনারেলও এর বিপক্ষে অবস্থান নেন।

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি দেয়ার কথা উল্লেখ থাকা বিলটি পাস হলেও ইসরায়েলের বিদ্যমান বহুমাত্রিকতার চরিত্র পাল্টাবে না বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু।

ইহুদি সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ হলেও ইসরাইলে বিশ শতাংশ মুসলমান বসবাস করেন। পার্লামেন্টেও বেশ কিছু আরব এমপি রয়েছেন। ৭০ বছর ধরে সব ধর্মের মানুষকে কাগজে-কলমে সমান অধিকার দেয়া দেশটির পার্লামেন্টে বিলটি পাস হওয়ার সময় কালো পতাকা প্রদর্শন করে এর বিরোধিতা করেন আরব এমপিরা।

শুধু আরব এমপিদের বিরোধিতা নয়, জেরুজালেম বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সাথে একাত্মতা প্রকাশের পর বিতর্কিত বিল পাস করায় বিশ্বব্যাপি সমালোচিত হচ্ছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু। তেল আবিবে এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছেন অনেক ইসরায়েলি।

 

এমকে