সিনেটরদের নিষেধের পরেও পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করবেন ট্রাম্প

প্রকাশ | ১৫ জুলাই ২০১৮, ১৬:৩১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন

ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিঙ্কিতে আগামীকাল সোমবার (১৬ জুলাই) অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বৈঠক। সিনেটরদের নিষেধ সত্ত্বেও রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। ১৪ জুলাই শনিবার শীর্ষ ডেমোক্র্যাটরা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কাছে চিঠি পাঠান। চিঠিতে তারা পুতিনের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করার আহ্বান জানান। তবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বৈঠক করবেন বলে হোয়াইট হাউস জানিয়েছে। খবর বিজনেস ইনসাইডার।

শুক্রবার মার্কিন বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি স্পেশাল কাউন্সিলের তদন্তে ১২ রুশ গোয়েন্দা অভিযুক্ত হয়। তারা ডেমোক্র্যাট দলের ওয়েবসাইট এবং প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের ই-মেইল হ্যাক করেছিল বলে তদন্ত কমিটি প্রমাণ পেয়েছে। এর একদিন পরই ডেমোক্র্যাট সিনেটররা পুতিনের সঙ্গে বৈঠক বাতিলের দাবি জানালেন। সোমবার ফিনল্যান্ডের হেলসিংকিতে প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে একান্ত বৈঠক করার কথা রয়েছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে লেখা চিঠিতে বলা হয়েছে, আপনি বৈঠক বাতিল করুন। না হলে পুতিনের নীতির বিরোধিতা করুন বা তার কাছে মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপের কৈফিয়ত তলব করুন। চিঠিতে প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে অন্য কোনও মার্কিনি যাতে উপস্থিত থাকে সেই ব্যবস্থা করারও দাবি জানানো হয়েছে। পুতিনের সঙ্গে এক কক্ষে একান্তে যেন ট্রাম্প বৈঠক না করেন। কারণ রাশিয়া যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রে আঘাত হেনেছে। ফলে সেই দেশটির প্রেসিডেন্টের সঙ্গে একান্ত বৈঠক গ্রহণযোগ্য নয়।

তাছাড়া প্রেসিডেন্ট পুতিন কেজিবির শীর্ষ গোয়েন্দা ছিলেন। তিনি সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েই বৈঠকে বসবেন। চিঠিতে স্বাক্ষর করেছেন শীর্ষ ডেমোক্র্যাট চাক চুসুমার, ডিক ডারবিন, মার্ক ওয়ার্নার, রবার্ট মেনেন্দেজ, ডায়েনা ফেইনস্টেইন, প্যাট্রিক লেইহি, শেরড ব্রাউনসহ কয়েকজন। হোয়াইট হাউসের সারাহ হাকেবি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ীই পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অনেক আগেই থেকে অস্বীকার করে আসছেন যে, রাশিয়া প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করেনি। তিনি বলেছেন, এটা ডেমোক্র্যাটদের গল্প। ১২ রাশিয়ানের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ধাক্কা খেলেন বলে মনে করা হচ্ছে। আলোচনা চলছে যে ট্রাম্প পুতিনের সঙ্গে বৈঠকে প্রসঙ্গটি উপস্থাপন করবেন কিনা।

এপি/পি