• ঢাকা রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

টয়লেটহীন বাড়িতে মেয়ে বিয়ে নয়!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ০৯ জুলাই ২০১৮, ২৩:৩২
টয়লেট ভারতের একটি মারাত্মক সমস্যা। অনেক ক্ষেত্রেই বেশির ভাগ বাড়িতে টয়লেট না থাকায় বিশেষ করে নারীদের বেশ বিপাকে পড়তে হয়। আর এমতাবস্থায় ভারতের একটি গ্রামের কাউন্সিল সিদ্ধান্ত নিয়েছে টয়লেট ছাড়া বিয়ে নয়। অর্থাৎ যে বাড়িতে টয়লেট নেই সেই বাড়িতে মেয়ে বিয়ে না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে গ্রামবাসী। খবর আল-জাজিরার।

ভারতের জনসংখ্যা প্রায় ১৩০ কোটি। অথচ এই বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীর জন্য পর্যাপ্ত টয়লেট নেই। আর এ কারণে নারীরাই বেশি বিপাকে পড়েন। প্রয়োজন সারতে তাদের সূর্যাস্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়। কিন্তু প্রয়োজন সারতে বাইরে বের হওয়াটাও তাদের জন্য নিরাপদ নয়। কেননা সেখানে তাদের জন্য হয়রানি, যৌন হামলা, পশুর হামলা এবং সংক্রমণের মতো বিপদ অপেক্ষা করে।

ওই গ্রামের একজন নারী বলছিলেন, আমাদের মেয়েদের নিরাপত্তার কথা ভেবে গ্রামের কাউন্সিল এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মেয়েদেরকে আমরা ঘরে দেবীর মতো সম্মান করি। আমরা তাদের পূজা করি। কিন্তু ঘরে টয়লেট না থাকার কারণে বাইরে যেতে হয়। এটা ভালো নয়।

এমনকি টয়লেট নিয়ে সম্প্রতি ভারতে সিনেমাও নির্মিত হয়েছে। টয়লেট: আ লাভ স্টোরি নামের ওই সিনেমা একজন বিবাহিত ব্যক্তির গল্প তুলে ধরা হয়েছে। যিনি তার স্ত্রীর জন্য একটি টয়লেট বানাতে সবকিছু ছাড়তে প্রস্তুত হয়ে যান। শেষপর্যন্ত স্ত্রীকে ফেরাতে নিজ গ্রামে একটি টয়লেট বানান ওই ব্যক্তি।

২০১৪ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ‘স্বচ্ছ ভারত’ প্রচারণা শুরু করেন। এই প্রচারাভিযানের অংশ হিসেবে দেশজুড়ে ২০১৯ সালের মধ্যে সাড়ে সাত কোটি টয়লেট বানানো ঘোষণা দেয় মোদি সরকার। এক অনুষ্ঠানে মোদি বলেন, দেশের মানুষ মহাত্মা গান্ধীর নেতৃত্বে স্বাধীনতা আন্দোলনের মাধ্যমে দেশকে মুক্ত করেছেন। কিন্তু তার স্বচ্ছ ভারতের স্বপ্ন এখনও অধরাই রয়ে গেছে।

২০১৪ সাল থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে প্রায় ছয় কোটি টয়লেট নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু সেগুলোর বেশির ভাগ কেউ ব্যবহার করছে না। কারণ সেগুলোতে পরিষ্কার পানি ও নিষ্কাশনের ভালো ব্যবস্থা নেই। তাছাড়া পাবলিক টয়লেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে সামাজিক সংকীর্ণতাও রয়েছেন।

তবে টয়লেট সমস্যা কেবল ভারতের একার নয়। বিশ্বের মোট জনসংখ্যার প্রায় ৬০ ভাগের বাড়িতে টয়লেট নেই।

এ/ এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়