• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

১১ স্বামী থাকায় পাথর ছুড়ে হত্যা করা হলো নারীকে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ১০ মে ২০১৮, ১৫:৫৯ | আপডেট : ১০ মে ২০১৮, ১৬:৪৭
একাধিক স্বামী থাকায় পাথর ছুড়ে হত্যা করা হলো এক নারীকে। এমন ঘটনা ঘটেছে সোমালিয়ায়। খবর রয়টার্স।

আল-শাবাব জঙ্গিগোষ্ঠী পরিচালিত একটি আদালত ওই নারীকে একাধিক স্বামী থাকার অপরাধে দোষী সাব্যস্ত করে। আদালতের রায়ে তাকে পাথর ছুড়ে হত্যা করা হয়।

ওই নারীর নাম শুকরি আব্দুল্লাহি ওয়ারসাম। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয় তিনি ১১ বার বিয়ে করেছেন এবং আগের কোনো স্বামীর সঙ্গেই তার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়নি।

সোমালিয়ার দক্ষিণাঞ্চলের শহর সাব্লালের বাসিন্দারা বলেন, আল শাবাবের জঙ্গিরা তাকে গলা পর্যন্ত মাটিতে পুঁতে রেখে তারপর পাথর ছুড়ে হত্যা করেছে।

সোমালিয়ার একটা বড় অঞ্চল নিজেদের দখলে রেখেছে আল শাবাব। দেশটির সরকারকে উৎখাতে প্রায়ই তারা হামলা চালিয়ে থাকে।
--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : বিশ্বের সবচেয়ে বয়সী প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন মাহাথির
--------------------------------------------------------

মোহাম্মদ আবু উসামা নামে আল শাবাবের একজন গভর্নর রয়টার্সকে বলেছেন,  শুকরি আব্দুল্লাহির বৈধ স্বামীসহ তার ৯ স্বামীকে আদালতে হাজির করা হয়, তারা প্রত্যেকে শুকরিকে নিজের স্ত্রী বলে দাবি করে।

ইসলামিক আইন অনুযায়ী, একজন নারীর একাধিক স্বামী থাকা অবৈধ, তবে পুরুষদের চারটি পর্যন্ত স্ত্রী থাকার বিধান রয়েছে। স্বামী-স্ত্রী উভয়েরই বিবাহ বিচ্ছেদ করার সুযোগ থাকলেও স্ত্রী বিচ্ছেদ চাইলে তাকে স্বামীর সম্মতি চাইতে হবে। স্বামী সম্মতি না দিলে স্ত্রী আদালতে যেতে পারবেন।

আল শাবাবের প্রচারমাধ্যমে বলা হয়েছে, শুকরিকে যখন আদালতে হাজির করা হয় তখন তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ ছিলেন এবং তারা বিরুদ্ধে আনা অভিযোগে তিনি দোষী সাব্যস্ত হন।

ধর্মীয় বিধানের লঙ্ঘনে আল শাবাবের জঙ্গিরা প্রায়ই কঠোর শারীরিক শাস্তি দিয়ে থাকে।

আরও পড়ুন : 

 

এপি/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়