• ঢাকা শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭ আশ্বিন ১৪২৫

আজানের পরিবর্তে এসএমএস ব্যবহারের পরামর্শ

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক
|  ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ২১:৩৫ | আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ২৩:০৯
ঘানার রাজধানী আক্রার মসজিদগুলোতে মাইকে আজান না দিয়ে মোবাইলে এসএমএস বা হোয়াটসঅ্যাপে বার্তা দিয়ে নামাজের জন্য মুসল্লিদের ডাকতে বলা হয়েছে৷যদিও মুসলমানরা এই পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করেছে৷

সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে শব্দদূষণ কমাতে এই পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

দেশটির পরিবেশমন্ত্রী কোয়াবেনা ফ্রিম্পং-বোয়েটেং রোববার  বলেন, টেক্সট কিংবা হোয়াটসঅ্যাপ দিয়ে কেন নামাজের সময়সূচি জানানো যাবে না? ইমাম সবাইকে হোয়াটসঅ্যাপে বার্তা পাঠাতে পারেন৷ আমি মনে করি, এর ফলে শব্দ কমবে৷ এটি হয়তো বিতর্কিত সিদ্ধান্ত মনে হতে পারে, কিন্তু এই বিষয়ে আমরা ভাবতে পারি৷

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : মক্কা মসজিদ বিস্ফোরণ মামলা থেকে মুক্তি পেল পাঁচ হিন্দু কট্টরপন্থী
--------------------------------------------------------

তবে আক্রার মুসলমান সম্প্রদায় সরকারের এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে৷

নোরা এনসিয়াহ নামে একজন খ্রীস্টান ধর্মাবলম্বী বলেন, সকাল বেলায় মেগাফোন ব্যবহার করে নামাজের জন্য মুসলমানদের ডাকার বিষয়টিকে আমি সমস্যা বলে মনে করি না।  কারণ, খ্রিষ্টানদের গির্জাও মেগাফোন ব্যবহার করা হয়৷

আক্রার আরেক বাসিন্দা কেভিন প্র্যাটও পরিবেশমন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করেছেন৷ তিনি বলেন, সবাই সামাজিক মাধ্যমে নেই৷ এছাড়া সবাই মন্ত্রীর মতো শিক্ষিত নন যে, মোবাইল ফোনে পারদর্শী হবেন।

এদিকে, বিষয়টি ভবিষ্যতে আইনের আওতায় আনা হতে পারে বলে আভাস দিয়েছে ঘানার সরকার৷ মসজিদ ছাড়াও অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয় থেকে সৃষ্ট শব্দদূষণ কমানোরও পরিকল্পনা করছে দেশটি৷

খ্রিষ্টানপ্রধান ঘানার মোট জনসংখ্যার প্রায় ২০ শতাংশ মুসলমান৷ এর আগে রুয়ান্ডার রাজধানী কিগালিতে লাউডস্পিকার ব্যবহার করে মসজিদে আজান দেয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে সে দেশের সরকার। রুয়ান্ডায় মুসলমানের সংখ্যা মোট জনসংখ্যার পাঁচ শতাংশ৷

আরও পড়ুন :

এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়