• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

অলিম্পিকের সর্বকালের সেরা প্রেমের গল্প!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৯:২০ | আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২০:১১
অলিম্পিকে আইস ড্যান্সে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন কানাডার টেসা ভার্চু আর স্কট ময়ার। কিন্তু এর চেয়েও বেশি আলোচনায় এসেছে তাদের দুজনের সম্পর্কের রসায়নের বিষয়টি। খবর বিবিসির।

সারা বিশ্বের স্কেটিং ভক্তরা বিশেষ করে কানাডার বাসিন্দারা এই দুই সহকর্মীর একটি সফল পরিণতি দেখতে চান। সামাজিক মাধ্যমে কানাডার লোকজনের বেশিরভাগ স্ট্যাটাসে এখন সেই আকাঙ্ক্ষাই ঘুরে বেড়াচ্ছে।

১৯৯৭ সাল থেকে একসঙ্গে স্কেটিং করছেন এই যুগল। তারা অলিম্পিকের দুইটি শীর্ষ পদক, তিনবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন, আটবার জাতীয় পর্যায়ের চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। তাদের এই সাফল্য বিশাল ভক্ত বাহিনীও তৈরি করেছে।

এরও প্রায় ৪০ বছর আগে কিশোর বয়সে স্কেটিং প্রশিক্ষণ নেয়ার সময় তাদের পরিচয় হয়।

কিন্তু এসব সাফল্যের চেয়েও তাদের রসায়নের বিষয়টিই ভক্তদের কাছে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে।

কানাডার ওয়াং যেমন মন্তব্য করেছেন, তারা কয়টি পদক পেলেন, সেটা এখন আর কোনো বিষয় না।

যদিও এই যুগল তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্কের বিষয়টি নাকচ করে দিয়েছেন। তাই বলে সামাজিক মাধ্যমে জল্পনা কল্পনা থেমে নেই।

এদিকে কেউ একজন ময়ারের উইকিপিডিয়া অ্যাকাউন্টে ঢুকে লিখেছেন, চলতি বছরের গ্রীষ্মে বিয়ে করছে এই যুগল।

ওদিকে এই যুগলের সম্পর্ক এখন শুধু কানাডার লোকজনের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। যেমন যুক্তরাষ্ট্রের একজন টুইটারে লিখেছেন, আগে আমি হাজার ভাগ আমেরিকান সমর্থক ছিলাম। কিন্তু এই যুগলের বরফ নৃত্য দেখার পর আমি একজন কানাডিয়ান হয়ে গেছি।

কানাডার ব্রডকাস্টার সিবিসি যুগলটির বিশ বছরের ক্যারিয়ার নিয়ে একটি পাঁচ মিনিটের ভিডিও তৈরি করেছে।

ভার্চু আর ময়ার কিছু না বললেও বেশিরভাগ কানাডিয়ানের নিশ্চিত ধারণা যে, তারা প্রেম করছেন। অনেকে তাদের দ্রুত একটি এনগেজমেন্ট তারিখ ঘোষণার দাবি করেছে।

তবে দুঃখজনক ব্যাপার হল, এই অলিম্পিকের পরেই অবসরে চলে যাওয়ার আভাস দিয়েছেন এই যুগল।

আরও পড়ুন:

এ/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়