• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

সেলফিতে ধরা পড়লেন খুনি!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ১৮ জানুয়ারি ২০১৮, ১২:২২ | আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০১৮, ১২:৫৮
২০১৫ সালে রাস্তার পাশে ১৮ বছর বয়সী ব্রিটনি গার্গলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মৃতের বান্ধবী শেয়ান রোজ আন্তোয়ানকে (২১) সাত বছরের সাজা দিয়েছেন কানাডার একটি আদালত। দেশটির সাসকাচুয়ান প্রদেশে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

স্থানীয় পুলিশ জানায়, ২০১৫ সালের মার্চ মাসে আন্তোয়ান তার বান্ধবীকে নিয়ে ঘুরতে বের হন। একটি পানশালায় দুইজনের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্যালাপের পর আন্তোয়ান ব্রিটনিকে বেল্ট দিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করেন। পরে তাকে রাস্তার পাশে ফেলে চলে যান।

কানাডা ভিত্তিক সিবিসি নিউজের বরাত দিয়ে দ্য সান জানায়, যদিও এ ঘটনার মোড় অন্যদিকে নেয়ার চেষ্টায় ছিলেন আন্তোয়ান। তাই হত্যার কয়েক ঘণ্টা পর পুলিশের চোখে ধূলা দেয়ার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। এতে ব্রিটনিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, তুমি কোথায়? কোনো খবর নাই কেন? আশা করি তুমি ঠিকঠাক বাড়ি পৌঁছেছ। 

ওই ঘটনায় পুলিশ সন্দেহভাজন হিসেবে আন্তোয়ানকে আটক করে। তবে জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানান, হত্যার দিন সে ব্রিটনির সঙ্গে পানশালায় এসেছিলেন ঠিকই কিন্তু বের হয়েছেন এক অপরিচিত পুরুষের সঙ্গে।

কিন্তু পরবর্তীতে এক বন্ধুর সাথে মদের আসরে বলা এক কথার জের ধরে ব্যাপারটি মিথ্যা প্রমাণিত হয়।

অন্যদিকে পুলিশ ব্রিটনির লাশের পাশে একটি বেল্ট পায় যেটাকে তারা তখন থেকেই ‘মার্ডার ওয়েপন’ হিসেবে সন্দেহ করতে থাকে। কিন্তু সে বেল্টটিকে কোনোভাবেই আন্তোয়ানের সঙ্গে জড়িত করতে পারেনি।

অবশেষে ব্রিটনিকে খুন করার ছয় ঘণ্টা আগে আন্তোয়ানের পোস্ট করা এক ফেসবুক সেলফি বিশ্লেষণ করে পুলিশ নিশ্চিত হয় যে বেল্টটি দিয়ে খুন করা হয়েছিল ব্রিটনিকে। ঠিক সেই বেল্টটিই পরে ছিলেন আন্তোয়ান।

এভাবেই পুলিশ সেই ফেসবুক সেলফির সহায়তায় হত্যার রহস্যটি উদঘাটন করতে সক্ষম হয়।

আরও পড়ুন

কেএইচ/ওয়াই

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়