ট্রাম্পের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলার কারণ নেই

প্রকাশ | ০৬ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:২৮ | আপডেট: ০৬ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:৩৫

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোনো কারণ নেই। বললেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন।

শুক্রবার সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি একথা বলেছেন।

রেক্স টিলারসন বলেন, ট্রাম্প যে অতীতের তথাকথিত প্রেসিডেন্টদের মতো নন, এটা স্বীকৃত বলেই এই ধারণা করছি। একই কারণে মার্কিন জনগণ তাকে পছন্দ করেছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী পরিচয়ের বাইরেও টিলারসনের আরো একটি পরিচয় আছে। তিনি ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।

‘ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি: ইনসাইড দ্য ট্রাম্প হোয়াইট হাউজ’র লেখক সাংবাদিক মাইকেল উলফ ট্রাম্পের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে তার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যেই সন্দেহ আছে দাবি করার পর হোয়াইট হাউজের কোনো শীর্ষ কর্মকর্তা প্রেসিডেন্টের পক্ষে শক্ত অবস্থান নিলেন।

উলফের দাবি, বইতে থাকা প্রায় দুইশ সাক্ষাৎকারের ওপর ভিত্তি করে তিনি ট্রাম্পের শিশুসুলভ চরিত্রের ধারণা পেয়েছেন। অন্যদিকে ট্রাম্প বলছেন, মিথ্যায় ভরপুর বইটি গণমাধ্যম ও অন্যদের তার বিরুদ্ধে উসকে দিতে পারে। উলফের বইটিতে ২০১৬ সালের নির্বাচনী প্রচারের সময় ট্রাম্পপুত্রের সঙ্গে রাশিয়ার কর্মকর্তাদের বৈঠককে রাষ্ট্রদ্রোহবলে হোয়াইট হাউজের সাবেক চিফ স্ট্র্যাটেজিস্ট স্টিভ ব্যাননের অভিযোগের কথা আছে।

নির্বাচনে জয়ের পর ট্রাম্পের হতভম্ব, বিস্মিত অবস্থা, হোয়াইট হাউজ নিয়ে ভয় পাওয়াসহ বহু অজানা তথ্যও রয়েছে বইটিতে।

উলফের দাবি, ট্রাম্পের সঙ্গে তিনঘণ্টা কাটিয়েছেন তিনি। ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারের সময় এবং অভিষেকের পর তার সঙ্গে তিনি এই সময় কাটান। ট্রাম্পের সঙ্গে তার কথাও হয়েছে।

অন্যদিকে ট্রাম্পের দাবি, সাংবাদিক উলফের সঙ্গে তিনি কখনো কথা বলেননি এবং তাকে হোয়াইট হাউজেও ঢুকতে দেয়া হয়নি।

কে/পি