• ঢাকা মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৩ আশ্বিন ১৪২৫

ভারতে অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় ১শ’ জঙ্গি!

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক
|  ০৬ অক্টোবর ২০১৬, ১৬:১১ | আপডেট : ০৭ অক্টোবর ২০১৬, ১৬:২০
ভারত ও পাকিস্তানে কাশ্মির ইস্যুতে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লেও দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ে উত্তেজনা কমাতে বারবার ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। কিন্তু তারপরেও ভারতে ১শ’ জঙ্গির অনুপ্রবেশ ঘটাতে পাকিস্তান সেনাবাহিনী ও আইএসআই উঠে পড়ে লেগেছে বলে অভিযোগ ভারতীয় গোয়েন্দাদের।

নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে সেনা অভিযানের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এখনও প্রকাশ্যে একটি শব্দও  উচ্চারণ করেননি। উল্টো যতবারই মুখ খুলেছেন ততবারই বুঝিয়েছেন ভারত কখনোই যুদ্ধ চায় না। অন্যদিকে পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ পার্লামেন্টের যৌথ অধিবেশনে বলেছেন, যুদ্ধ পথ নয়, সে পথে যেতেও চায় না ইসলামাবাদ।

কিন্তু তারপরেও সীমান্তে ১শ’ জঙ্গির অনুপ্রবেশের চেষ্টা কেন ? ভারতের গোয়েন্দারা মনে করছেন এরইমধ্যে কিছু জঙ্গির অনুপ্রবেশ হয়েছে। বাকিদেরও চেষ্টা চলছে। ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল  কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার নিরাপত্তা বিষয়ক কমিটির বৈঠকে গোয়েন্দা রিপোর্টের কথা উল্লেখ করে আশঙ্কা জানিয়েছেন। তিনি জানান, আসছে মাসে কাশ্মিরের উরি-বারামুলায় জঙ্গি হামলা আরও হতে পারে।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পার্লামেন্টে নওয়াজ শরিফ যুদ্ধবিরোধী কথা বললেও হিজবুল মুজাহিদিন নেতা বুরহান ওয়ানির প্রশংসা করতে ভোলেননি। সন্ত্রাসের সঙ্গে পাকিস্তানের আত্মীয়তা যে কত গভীর, শরিফের এ মন্তব্য থেকেই তা স্পষ্ট।

ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্র উল্লেখ করে কলকতার আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, দুমুখী নীতির জন্যই লাহোর বাসযাত্রার সূচনা আর কার্গিলে হানা একসঙ্গে হয়েছিল। সে দেশের রাজনৈতিক নেতাদের মুখে শান্তির কথা বললেও, পাক সেনা, আইএসআই বা হাফিজ সইদের মতো জঙ্গিরা মুখ বন্ধ করে বসে নেই। হামলার পরদিনই হাফিজ সইদ প্রকাশ্যে বদলা নেয়ার হুমকি দিয়েছেন। পাক সেনাপ্রধান রাহিল শরিফও অবসরের আগে ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্রাইকেরকলঙ্কমুছে জবাব দেয়ার কথা বলেছেন। আর এদের কারও ওপরেই নওয়াজের কোনও নিয়ন্ত্রণ নেই

এমকে/এএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়