সিএনএনকে বয়কট করতে ট্রাম্পের আহ্বান

প্রকাশ | ২৯ নভেম্বর ২০১৭, ২৩:৩১ | আপডেট: ২৯ নভেম্বর ২০১৭, ২৩:৫০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আমেরিকা ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম কেবল নিউজ নেটওয়ার্ককে (সিএনএন) বয়কটের আহ্বান জানিয়েছেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

আজ বুধবার হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি সারা স্যান্ডার্সের একটি টুইট রি টুইট করে ট্রাম্প লিখেন, আমাদের উচিৎ সিএনএসের ভুল সংবাদ বর্জন করা। তাদের সংবাদ আমাদের সময় অপচয় করছে।

টুইটে ‘হোয়াইট হাউজের বড় দিনের আয়োজন বয়কট করছে সিএনএন’এমন সংবাদের লিঙ্ক পোস্ট করেন সারা। সেসময় ব্যাঙ্গ করে তিনি লিখেন, বড়দিন দ্রুত চলে এসেছে! অবশেষে গুড সিএনএনের পক্ষ থেকে সুসংবাদ।

সিএনএনের সঙ্গে নির্বাচনী প্রচারকাল থেকে ট্রাম্পের দ্বন্দ্ব। অন্যদিকে ট্রাম্প প্রশাসন এটিঅ্যান্ডটি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে লড়ছে যাতে সিএনএনের স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান টাইম ওয়ার্নারে সঙ্গে এটিঅ্যান্ডটি কোনো চুক্তি না করতে পারে।

ট্রাম্প প্রস্তাবিত চুক্তির সমালোচনা করেছে আসছেন, যা বন্ধ করতে বিচার বিভাগ মামলা দায়ের করেছে। 

আইনি বিশেষজ্ঞরা বলছেন সিএনএনকে ঘিরে ট্রাম্প যে সব আক্রমণাত্মক কথা বলেছেন সে বিষয়ে প্রেসিডেন্টের ও তার প্রশাসনের বিরুদ্ধে মামলা হতে পারে।

নির্বাচনী প্রচারণাকালে রিপাবলিকান প্রার্থী ট্রাম্প জানিয়েছিলেন, তিনি জয়ী হলে যে কোনো মূল্যে এটিঅ্যান্ডটি-টাইম ওয়ার্নার চুক্তি রুখে দেবেন। শুধু তাই নয়, নির্বাচনী প্রচারণার সময় সিএনএন’র বিরুদ্ধে ট্রাম্পের অভিযোগ ছিল, সংবাদ মাধ্যমটি তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে মেতেছে।

ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সির দায়িত্বে অভিষেকের পর থেকেই প্রতিষ্ঠানটি ট্রাম্পের প্রচারণা দলের ওপর ক্রেমলিনের (রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবন) সঙ্গে সংযোগের অভিযোগ করে আসছিল। ট্রাম্প সব অভিযোগ প্রত্যাখান করে সিএনএনকে মিথ্যে খবর ছড়ানোর জন্য দায়ী করেছেন।

গেলো রোববার টুইটার পোস্টে ট্রাম্প বলেন, ‘সিএনএন এর চেয়ে ফক্স নিউজ আমেরিকার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু সিএনএন ইন্টারন্যাশনাল এখন পর্যন্ত ভুয়া খবর ছড়িয়ে যাচ্ছে। বিশ্ব তাদের কাছ থেকে সত্যিকারের সংবাদ পাচ্ছে না। তারা আমাদের দেশকে দুর্বলভাবে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরছে।’

প্রেসিডেন্টের সমালোচনার পাল্টা উত্তরে সিএনএন টুইট বার্তায় জানায়, ‘আমেরিকাকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরা সিএনএনএর কাজ নয়, এটি আপনার দায়িত্ব। আমাদের কাজ খবরের প্রতিবেদন তৈরি করা।’

সিএনএন বিক্রি করে দেয়ার জন্য অনেক দিন ধরেই চাপ দিচ্ছে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন। 

গেলো বছর টাইম ওয়ার্নার ও এটিঅ্যান্ডটি একীভূত হওয়ার জন্য ৮ হাজার ৫০০ কোটি ডলারের চুক্তি অনুমোদন করা হয়েছিল। ট্রাম্প প্রশাসনের চাপের খবর প্রকাশের পর এটিঅ্যান্ডটির নির্বাহী প্রধান বলেছেন, চলতি বছরের মধ্যে চুক্তি বাস্তবায়নের সম্ভাবনা দেখছেন না তিনি।

টাইম ওয়ার্নারের নিয়ন্ত্রণাধীন এইচবিও, সিএনএন চ্যানেল, ওয়ার্নার ব্রস মুভি স্টুডিওসহ অন্যান্য মিডিয়া সম্পত্তি এটিঅ্যান্ডটি’র হাতে চলে আসবে। এতে মিডিয়ার শক্তি আরও সুসংহত হবে বলে মনে করছেন ট্রাম্প। 

বিচার বিভাগ বলছে, এ চুক্তির কারণে সিএনএন’র ভোক্তারা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

ওয়াই/এএ