• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট এমনানগাগওয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ২৪ নভেম্বর ২০১৭, ১৬:০১ | আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০১৭, ১৬:৩৬
এমারসন এমনানগাগওয়া জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছেন। শুক্রবার রাজধানী হারারের  একটি স্টেডিয়ামে উল্লসিত জনতা সামনে এই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। জিম্বাবুয়ের প্রধান বিচারক লুক মালাবা এই শপথ বাক্য পাঠ করান।  খবর বিবিসির।

জিম্বাবুয়ের ন্যাশনাল স্পোর্টস স্টেডিয়াম এবং শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের আয়োজকরা এটিকে ‘ঐতিহাসিক দিন’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

ওই শপথ অনুষ্ঠানে এমনানগাগওয়ার সঙ্গে তার স্ত্রী অক্সিলিয়াও উপস্থিত ছিলেন। অংশ নেন আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের নেতারাও।

প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবের ৩৭ বছরের শাসনাবসানের পর এমনানগাগওয়া জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিলেন।

এর আগে এ মাসের প্রথম দিকে এমারসন এমনানগাগওয়াকে ভাইস প্রেসিডেন্টের পদ থেকে সরিয়ে দেয়ার পর জিম্বাবুয়ের সেনাবাহিনী দেশটির ক্ষমতা দখল করে নেয়। পরে সেনাবাহিনী এবং ক্ষমতাসীন জানু-পিএফ পার্টির চাপে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন রবার্ট মুগাবে।

এমনানগাগওয়াকে সরিয়ে দেয়া হলে তিনি দক্ষিণ আফ্রিকা পালিয়ে যান। পরে বুধবার তিনি নির্বাসন থেকে দেশে ফেরেন।

ওইদিনই হারারেতে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে এক বক্তৃতায় এমনানগাগওয়া জিম্বাবুয়ের অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের অঙ্গীকার করেন। তিনি বলেন, আমি আপনাদের সেবক হবার অঙ্গীকার করছি। আমি সকল দেশপ্রেমিক জিম্বাবুইয়ানদের একতাবদ্ধ হবার আহ্বান জানাই। আমরা সবাই একসাথে কাজ করবো। এখানে কেউই কারো চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ নন। আমাদের পরিচয় আমরা জিম্বাবুয়ের নাগরিক। আমরা আমাদের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে চাই, দেশে শান্তি ফিরিয়ে আনতে চাই। আমরা চাই কাজ, কাজ এবং কাজ।

এদিকে জিম্বাবুয়ের বিরোধীরা ‘দুর্নীতির সংস্কৃতি’ বন্ধে এমনানগাগওয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার রবার্ট মুগাবে প্রেসিডেন্ট পদ থেকে সরে দাঁড়ান। মুগাবেকে অভিশংসনের জন্য যখন পার্লামেন্টে যৌথ অধিবেশনে বিতর্ক চলছিল তখনই ওই পদত্যাগের ঘোষণা আসে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়