• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

প্যারাডাইস পেপার্স কেলেঙ্কারি

জলবায়ু চুক্তি পরিবর্তনে প্রচার চালিয়েছেন যুবরাজ চার্লস

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ০৮ নভেম্বর ২০১৭, ১০:৫৬
নিজের গোপন বিনিয়োগে আর্থিকভাবে লাভবান হবেন এমনটি প্রকাশ না করেই জলবায়ু চুক্তি পরিবর্তনের জন্য প্রচারণা চালিয়েছিলেন ব্রিটিশ যুবরাজ চার্লস। সম্প্রতি ফাঁস হওয়া প্যারাডাইস পেপার্স থেকে এমন তথ্যই জানা গেছে। খবর বিবিসি, দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টের।

প্যারাডাইস পেপার্সের ওই নথিগুলোতে দেখা গেছে, ২০০৭ সালে যুবরাজ চার্লস তারই এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিউ ভ্যান কাটসেমের কোম্পানিতে অর্থ বিনিয়োগ করেন। বারমুডাভিত্তিক ওই কোম্পানিতে যুবরাজে বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল এক লাখ ১৩ হাজার পাঁচশো ডলার।

সাসটেইনেবল ফরেস্ট্রি ম্যানেজমেন্টের একজন পরিচালক ছিলেন হিউ। ওই কোম্পানি বন উজাড় হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করতে ভূমিতে অর্থ লগ্নি করে থাকে।

তবে ডাচি অব কর্নওয়াল যুবরাজ চার্লস বলেছেন, এই বিনিয়োগের সঙ্গে তার সরাসরি কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

রাজপরিবারের একটি বাসভবন ক্লারেন্স হাউজের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, ওই কোম্পানিতে বিনিয়োগ করার কারণে তিনি নিশ্চিতভাবেই এ বিষয়ে কথা বলা থেকে বিরত থেকেছেন।

ওই মুখপাত্র বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে যুবরাজের অবস্থান সুপ্রতিষ্ঠিত। গেলো ৩০ বছর ধরে বৈশ্বিক উষ্ণতার হুমকি নিয়ে তিনি বরাবরই সোচ্চার থেকেছেন।

তিনি আরো বলেন, যুবরাজ চার্লস ‘যেকোনো বিষয়েই মতামত ও পরামর্শ দিতে পারেন’। যুবরাজ চার্লস ‘গভীর যত্ন সহকারে’ জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে চিন্তা করেন। কিন্তু যুবরাজের ‘পরামর্শ গ্রহণ করা না করার বিষয়টি অন্যের ওপর নির্ভর করে’।

যুবরাজ চার্লস জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে বরাবরই সোচ্চার। তবে বিবিসি জানাচ্ছে, সাসটেইনেবল ফরেস্ট্রি ম্যানেজমেন্ট লবি করার জন্য কিছু নথি পাঠালে যুবরাজ জলবায়ু পরিবর্তনের দুটি গুরুত্বপূর্ণ চুক্তির ব্যাপারে প্রচারণা শুরু করেন।

ওই কোম্পানিতে শেয়ার কেনা মাসখানেক পর যুবরাজ চার্লস কিয়োটো প্রোটোকল এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের কার্বন নিঃসরণ বাণিজ্য ব্যবস্থায় কার্বন ক্রেডিটকে অনুমতি দেয়ার ব্যাপারে প্রচারণা শুরু করেন।

উল্লেখ্য, কার্বন ক্রেডিট হচ্ছে এমন এক ব্যবস্থা যেখানে উন্নত বিশ্ব টাকার বিনিময়ে মাত্রার চেয়ে বেশি কার্বন নিঃসরণের অনুমতি কিনে নেয়।

এ/এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়