• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

অস্ট্রেলিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রীর সদস্যপদ অবৈধ ঘোষণা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ২৭ অক্টোবর ২০১৭, ১০:৩২
অস্ট্রেলিয়ার হাইকোর্ট শুক্রবার দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী বার্নাবি জয়েসের পার্লামেন্ট সদস্যপদ অযোগ্য ঘোষণা করেছেন। দ্বৈত নাগরিকত্ব থাকার অভিযোগে দেশটির আদালত আরো চারজন সাংসদকে অযোগ্য ঘোষণা করেন। খবর বিবিসির।

এই রায়ের ফলে জয়েসসহ আরো তিন রাজনৈতিক পার্লামেন্টে তাদের পদে থাকার অযোগ্য হলেন। বাকিরা গেলো জুলাইয়ে পদত্যাগ করেছেন।

এদিকে জয়েসের অযোগ্যতার কারণে পার্লামেন্ট থেকে একটি সিট হারালো ক্ষমতাসীন দল। তবে মধ্যবর্তী নির্বাচনেই ক্ষমতাসীনরা ওই আসনটি ফিরে পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

গেলো আগস্টে উপপ্রধানমন্ত্রী নিউজিল্যান্ডে তার নাগরিকত্ব থাকার কথা স্বীকার করেন।

রায়ের ব্যাপারে প্রতিক্রিয়ায় জয়েস বলেন, আমি আদালতের এই রায়কে সম্মান জানাই। আমরা একটি দারুণ গণতান্ত্রিক দেশে বাস করি। যেখানে চেক এবং ব্যালেন্সের মধ্য দিয়ে আমাদেরকে বিভিন্ন ধরনের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে। আমি তাদের রায়কে স্বাগত জানাই।

পার্লামেন্ট সদস্যপদ হারানো আরো অন্য চারজন রাজনীতিবিদ হচ্ছেন ফিওনা ন্যাশ, ম্যালকল্ম রবার্টস, লারিস্সা ওয়াটার্স এবং স্কট লুডলাম।

এদিকে অন্য দুই সিনেট সদস্য ম্যাট ক্যানাভান এবং নিক জেনোফোনের পার্লামেন্ট সদস্যপদ বৈধ বলে রায় দিয়েছেন আদালত।

গেলো জুলাই থেকে দ্বৈত নাগরিকত্ব নিয়ে বেশ গরম হয়ে ওঠেছে অস্ট্রেলিয়ার রাজনৈতিক পরিমণ্ডল। দেশটির সংবিধান অনুযায়ী দ্বৈত নাগরিকত্ব নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্ট সদস্য হওয়া যাবে না।

এ/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়