• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

সৌদি বাদশাহর কাছ থেকে যেসব দামি উপহার পেয়েছিলেন ট্রাম্প

অনলাইন ডেস্ক
|  ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১০:২৪
বিদেশ থেকে আসা রাষ্ট্রীয় অতিথিদের দামী উপহার দেয়া সৌদি রাজপরিবারের বহুদিনের ঐতিহ্য। চলতি বছরের মে মাসে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম বিদেশ সফর ছিল সৌদি আরব। সেই সফরে বর্তমান সৌদি বাদশাহ সালমানের কাছ থেকে ট্রাম্প পেয়েছেন বহু দামি উপহার সামগ্রী। মার্কিন পত্রিকা ডেইলি বিস্ট আমেরিকার তথ্য অধিকার আইনের সূত্র ধরে পররাষ্ট্র দপ্তরের কাছ থেকে সেই উপহারের তালিকা বের করেছে।

তাতে দেখা গেছে সৌদি আরব সফরে মোট ৮৩টি উপহার পেয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। উপহারের তালিকায় রয়েছে চিতাবাঘের চামড়ার লাইনিং দেয়া এবং সোনার নকশা করা ঐতিহ্যবাহী সৌদি আলখাল্লা, বেশ কতগুলো মণিমুক্তা খচিত তরবারি, ব্যাগ, জুতো, সুগন্ধি, দামি কিছু পেইন্টিং।

অ্যারাবিয়া ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক আলী শিহাবী বলছেন, উপহারগুলো খুব বেশি বিলাসী নয়। আগে মধ্যপ্রাচ্যের শাসকেরা চোখধাঁধানো দ্রব্যাদি যেমন দামি ঘড়ি, স্বর্ণালংকার উপহার হিসেবে দিতেন। এখন আসলে স্থানীয় সংস্কৃতি কিংবা হাতে তৈরি ঐতিহ্যমণ্ডিত শিল্পকর্ম দেয়া হয়।

তবে সৌদি বাদশাহ শুধু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকেই নয়, তার সফরসঙ্গী সবাইকেই একই ধরনের উপহার দিয়েছেন। তবে প্রেসিডেন্ট চাইলেই তার মনমতো উপহারগুলো নিজের কাছে রাখতে বা শিল্পকর্মগুলো তার অফিস বা বাসার দেয়ালে টাঙাতে পারবেন না। আমেরিকার আইন অনুযায়ী বিদেশি সরকারের কাছ থেকে পাওয়া ৩৯০ ডলারের বেশি মূল্যমানের কোনো উপহার নিজের কাছে রাখতে পারেন না দেশটির সরকারের কেউ।

উল্লেখ্য, ১৯৪৫  সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালীন সময়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল সৌদি আরব সফরে গিয়েছিলেন। তিনি বাদশাহ আব্দুল আজিজ ইবনে সউদের জন্য উপহার হিসাবে ১০০ পাউন্ড মূল্যের সুগন্ধি নিয়ে গিয়েছিলেন। অন্যদিকে চার্চিল পেয়েছিলেন হীরার আঙটি, মনি-মুক্তো বসানো তরবারি আর পোশাক। লজ্জা পেয়ে দেশে ফিরে তিনি সৌদি বাদশার জন্য একটি রোলস রয়েস গাড়ি পাঠিয়েছিলেন।

এপি/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়