• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

৪৬ বছরে কেমন আছে প্রিয় বাংলাদেশ?

মারুফ রেজা
|  ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৭:৪৬ | আপডেট : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৭:৫৩
বিশ্বের উদীয়মান অর্থনীতির দেশের তালিকায় অনন্য এক নাম বাংলাদেশ। এক সময়ের তলাবিহীন ঝুড়ির অপবাদ ঘুচিয়ে গেলো চার দশকেই উন্নয়নের রোল মডেলও বলা হচ্ছে এই ছোট্ট বাংলাদেশকেই। স্বাধীনতার ৪৬ বছরে অর্জনের খাতে অনেক কিছুই যোগ হয়েছে। 

তবে উন্নয়ন ধারাকে টেকসই করাটাই এখন অন্যতম চ্যালেঞ্জ হিসেবে বলছেন বিশ্লেষকেরা।

এক সাগর রক্ত আর অনেক প্রাণের বিনিময়ে পাওয়া এই বাংলার মাটি, মুক্ত আকাশ, পাখি, ফুল-ফল ও প্রকৃতি, স্বাধীন লাল-সবুজ পতাকা।

৪৬ বছর আগে যে স্বপ্ন আর সাহস নিয়ে অর্জিত হয়েছিলো লাল-সবুজের নিশান, বয়সের ৪৬ বছরে কেমন আছে সে প্রিয় বাংলাদেশ?

এক সময়ের পিছিয়ে থাকা আজকের ৫৬ হাজার বর্গমাইলের বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে অনন্য এক নাম। যাকে বিশ্ববাসী বলে থাকে এশিয়ান টাইগারস কিংবা নেক্সট ইলেভেন। 

বিশ্ব অর্থনীতি যখন টানাপোড়েনের মধ্যে তখন ছোট্ট বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ১৬১০ মার্কিন ডলার। অবকাঠামো উন্নয়নে এগিয়েছে যেমন তেমনি নারীর ক্ষমতায়ন কিংবা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতার সঙ্গে বেড়েছে রিজার্ভ-রেমিটেন্স। 

পরিসংখ্যান বলছে, স্বাধীনতার পর থেকে শুরু করে দীর্ঘ ২৫ বছর পর্যন্ত বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার সাড়ে ৪ শতাংশের বেশি বাড়েনি। এর মধ্যে ১৯৭৩-৭৪ থেকে ১৯৭৯-৮০ সময়ে প্রবৃদ্ধির হার ছিল মাত্র গড়ে ৩ দশমিক ৮ শতাংশ। পরের ১০ বছর জিডিপি বেড়েছে প্রায় ৫ শতাংশ হারে। এরপর থেকে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ছাড়িয়ে গেছে ৬ শতাংশ। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে দেশে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৭ দশমিক ২৮ শতাংশ। 

গেলো সাত বছরে দারিদ্র্যের হার ১০ ভাগ কমে এখন ২১ দশমিক ৪ শতাংশ। আর ১৬ কোটির মধ্যে দারিদ্রসীমার নিচে এখন ২ কোটি মানুষ। যা স্বাধীনতার পর ছিলো সাড়ে চার কোটি। 

সমাজ বিশ্লেষক সৈয়দ আনোয়ার হোসেনের মতে, স্বাধীনতা মানেই মুক্তি নয়। সামাজিক-রাজনৈতিক বৈষম্যহীন সমাজের বাংলাদেশ গড়তে কাজ করে যেতে হবে আরো বহুদিন।

আরকে/এমকে/এসআর  

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়