close
ঢাকা, সোমবার, ২৬ জুন ২০১৭ | ১২ আষাঢ় ১৪২৪

থামানো যাচ্ছে না বহুতল মার্কেটের পার্কিং-বেইজমেন্ট দখল (ভিডিও)

শাহাবুদ্দিন শিহাব
|  ১৪ জুন ২০১৭, ১৫:৫৫ | আপডেট : ১৪ জুন ২০১৭, ১৫:৫৯
রাজধানীর গুলিস্তান-ফুলবাড়িয়ার সিটি প্লাজা, নগর প্লাজা ও জাকের মার্কেট। যেন একসূত্রে গাঁথা ৩টি জমজমাট বিপনী বিতান। কোনভাবেই থামানো যাচ্ছে না এসব বহুতল মার্কেটের পার্কিং-বেইজমেন্টসহ, মূল নকশার বাইরে দোকান-পাট নির্মাণকারী চক্রের নাটের গুরুদের। 

রাজধানীর ফুলবাড়িয়ার সিটি, নগর প্লাজা ও জাকের মার্কেটের পার্কিং, সিঁড়ি, লিফট, টয়লেটসহ গ্রাস করা হয়েছে সব খোলা জায়গা। সবটুকুই যেন খেতে হবে। কোনকিছুই বাদ রাখা যাবে না। এমন কিছু অসাধু মানুষের অনৈতিক মানসিকতার কারণে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগের যেন সীমা থাকে না। অর্থের লোভ তাদের করে তুলেছে অমানুষ। চোখের সামনে এমন অনিয়ম দেখারও যেন কেউ নেই। তাই ক্রমেই বেড়ে চলেছে প্রতারক চক্রের দৌরাত্ম্য।

রাজধানীর এই ৩টি মার্কেটেই গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গায় করা হয়েছে শত শত দোকান। এতে মার্কেটের স্বাভাবিক পরিবেশ ব্যাহত হওয়ার পাশাপাশি রাস্তায় সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। তবে এসব মার্কেটের অস্বাস্থ্যকর পরিবেশসহ নানা দুর্ভোগের কথা জানালেন দোকানিরা।   

অবৈধভাবে যারা এখানে ব্যবসা করছেন তাদের মধ্যেও নেই শান্তি। মূল মার্কেটের বাইরে গড়ে উঠা অবৈধ দোকানগুলোর জন্য ক্রেতা পাননা নগর প্লাজার বেজমেন্টের বিক্রেতারা। আর এসব অনিয়মের বিষয়ে খোলামেলা কথা বলতেও নারাজ নগর প্লাজা দোকান মালিক সমিতির কর্মকর্তারা ।   

এসব মার্কেটের লিফট, টয়লেট, সিঁড়ি, মাঝখানের সংযোগ রাস্তাসহ বিভিন্ন জায়গায় গড়ে উঠেছে, অবৈধ দোকান-পাট।  আবার অস্থায়ী এসব দোকান-পাটের দায় সিটি করপোরেশনের উপর চাপালেন জাকের মার্কেট মালিক সমিতির সদস্যরা।

এদিকে সবকিছু যখন দখলদারদের কবলে তখন ফুটপাত রেখে লাভ কি। সেটিও দখল করে ফেলেছে নানা অবৈধ স্থাপনা। 

তবে বিশিষ্টজনরা মনে করেন পার্কিংসহ সকল অবৈধ স্থাপনা দখলমুক্ত করে মার্কেটে উন্নত পরিবেশ নিশ্চিত করা গেলে বাড়বে ক্রেতার সংখ্যা। 

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল জানান, এসব পার্কিং উচ্ছেদ করে খুব দ্রুতই শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা হবে।  

 

আরকে/এসজে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়