• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ৩ কার্তিক ১৪২৫

সংকট কাটবে কি?

এ এইচ মুরাদ, আরটিভি অনলাইন
|  ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:৫২ | আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:৫৯
ঢাকাই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির বর্তমান অবস্থা খুব একটা ভালো যাচ্ছে না। কমেছে ছবি নির্মাণ। অন্যদিকে একের পর এক সিনেমা হল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ভালো সিনেমা নেই। সিনেমা হলে দর্শক নেই। দীর্ঘদিন ধরেই হল মালিকরা এমন অভিযোগ করে আসছিলেন। এরই মধ্যেই অনেক প্রযোজক লসের পাল্লা ভারী করে সিনেমা নির্মাণ করছেন।

কিন্তু ইন্ডাস্ট্রির কিছু প্রযোজকদের মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্ব আরও যেন সিনেমা বাজারকে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে বলে মত দিয়েছেন কেউ কেউ। আগামীকাল শুক্রবার (১২ অক্টোবর) নায়ক, মাতাল, আসমানী ও মেঘকন্যা নামে চারটি ছবি মুক্তির কথা ছিল। এর মধ্যে ‘নায়ক’ ও ‘মাতাল’ আগেই ১টি করে সিনেমা হলে মুক্তি পায়। অন্যদিকে ‘আসমানী’ ও ‘মেঘকন্যা’ নতুন সিনেমা হিসেবে মুক্তির কথা ছিল। চার ছবির শিল্পীরাই মুক্তির প্রচারণায় অংশ নিচ্ছিলেন নিয়মিতভাবেই।

তবে বড় বাজেটের দুই ছবি ‘মাতাল’ ও ‘নায়ক’ নতুনভাবে মুক্তির ঘোষণা দেয়ার পর ‘আসমানী’ মুক্তির মিছিল থেকে সরে দাঁড়ায়। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাকি তিন ছবির মধ্যে ‘নায়ক’ ৯০টি সিনেমা হল, ‘মাতাল’ ৮০টি সিনেমা হলে মুক্তির জন্য প্রস্তুত ছিল। অপরদিকে ‘মেঘকন্যা’ ছবিটি ৩০টি হলে মুক্তির পরিকল্পনা থাকলেও গতকাল রাত পর্যন্ত একটি সিনেমা হলেও বুকিং পায়নি বলে জানা যায়।

-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : ‘অভিনয়ে ফিরলেন রঞ্জন’
-------------------------------------------------------

বাকি দুই ছবির সংশ্লিষ্টরা অভিযোগ করে বলেন, ‘মেঘকন্যা ছবিটি হল না পাওয়ার প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট ‘মাতাল’ ও ‘নায়ক’ সিনেমার নামে মামলা করেন ওই ছবির প্রযোজক।

আদালত আগামীকাল শুক্রবার ছবি দুটি মুক্তি দেয়ার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোরওয়ার্দীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট রুলসহ এই আদেশ দেন।

‘নায়ক’ এর পরিচালকদ্বয় বলেন, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের আদেশের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে আমরা আমাদের ‘নায়ক’ ছবিটি আগামী ১২ অক্টোবর কোনও হলে মুক্তি দেবো না। শিগগিরই নায়ক ছবিটি মুক্তির তারিখ জানানো হবে। সবাই ‘নায়ক’ ছবির পাশে থাকবেন এই কামনা করছি।

অন্যদিকে ‘মাতাল’ ছবির প্রযোজকও বলেন, আদালতের আদেশের প্রতি সম্মান দেখিয়ে ১২ অক্টোবর ছবিটি মুক্তি দেয়া হবে না।

এদিকে ‘নায়ক’ ও ‘মাতাল’ ছবি দুটি মুক্তি না পেলেও ‘মেঘকন্যা’ ছবিটি প্রদর্শন করতে আগ্রহী নন বলে একাধিক সিনেমা হলের মালিক, ম্যানেজার জানিয়েছেন। ওইদিন তারা শাকিব খানের পুরনো ছবি প্রদর্শনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

শেষ মুহূর্তে দুটি ছবি প্রদর্শন বন্ধের কারণে দুই প্রযোজকই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে জানান। আর সিনেমা মুক্তিকে কেন্দ্র করে এই সংকট ভবিষ্যতে আরও বেশি প্রভাব ফেলবে বলেও অনেকেই মত দিয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সিনিয়র পরিচালক বলেন, দেখুন নিয়ম আছে উৎসব ব্যতীত কোনও শুক্রবার নতুন দুইটি ছবির বেশি মুক্তি দেয়া যাবে না। চারটি ছবির মধ্যে তো দুইটি আগেই মুক্তি দেয়া হয়েছে। কিন্তু অন্য একটি ছবির কারণে তখন ওই ছবি দুটি বেশি হল পায়নি। আর এই দুই ছবির মুক্তি ঘোষণার পর তো আরেকটি ছবি সরে গিয়েছিল। কিন্তু ইন্ডাস্ট্রির এই খারাপ সময়ে এসব মামলার কোনও দরকার ছিল না। সমস্যা থাকলে সবাই বসেও একটা সমাধান করতে পারতেন। যার ছবি ভালো হল মালিকরা তার ছবিই নেবেন। এখানে রুটি রুজির বিষয় জড়িত। এই মামলা যে করেছে ভবিষ্যতে তো তাকেও এধরণের সমস্যায় পড়তে হতে পারে।

আরও পড়ুন : 

এম/এমকে  

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়